প্রধান মেনু খুলুন

পাতা:অপরাজিত - বিভূতিভূষণ বন্দ্যোপাধ্যায়.pdf/৯৬

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


s অপরাজিত ভয় খাইয়া গেল, যে রকম মেয়ে, কোন দিন পড়ানোর কোন ত্রটির কথা বাবাকে লাগাইবে, চাকরির দফা গয়া-পথে বসা ছাড়া আর কোনও উপায় থাকিবে না । ছাত্রীর উপর অসন্তুটুিও বিরান্ডিতে তাহার মন ভরিয়া উঠিল। মাসখানেক কাটিয়া গেল। প্রথম মাসের মাহিনা পাইয়াই মাকে কিছ. টাকা পঠাইয়া দিল । বৌবাজার ডাকঘর হইতে টাকাটা পাঠাইয়া সে চলিয়া যাইতেছিল, সঙ্গের বন্ধটি বলিল, এসো তো ভাই একটু চোরাবাজারে, একটা ভাল অপ্রোগ্রাস কাল দীর ক’রে রেখে এসেছি।-নিয়ে আসি । চােরাবাজারের নামও কখনও অপ, শোনে নাই। ঢুকিয়া দেখিয়াই সে অবাক হইয়া গেল । নানা ধরণের জিনিসপত্র, খেলনা, আসবাবপত্র, ছবি, ঘড়ি, তো, কলের গান, বই, বিছানা, সাবান, কোঁচ, কেদার-সবই পর্যানেী মাল । অপর মনে হইল।--বেশ সপ্তা দরে বিকাইতেছে। একটা ফুলের টব, দীর বলিল ছ'আনা । একটা ভাল দোয়াতদান দশা আনা । এগারো টাকায় কলের গান মায় রেকড ! এত দিন কলিকাতায় আছে, এত সস্তায় এখানে জিনিসপত্র বেচা-কোেনা হয়, তা তো সে জানে না। এত শৌখিন জিনিসের এত কম দাম । তাহার মাথায় এক খেয়াল আসিয়া গেল। পরদিন সে বাকী টাকা হাতে বৈকালে আসিয়া চোরাবাজারে ঢুকিল । মনে ভাবিল-এইবার একটু ভাল ভাবে থাকবো, ওরকম গোয়ালঘরে থাকতে পারি। নে -যেমন নোংরা তেমনি অন্ধকার । প্রথমেই সে ফুলদানিজোড়া কিনিল । দোয়াতদানের উপর অনেকদিন হইতে ঝোঁক, সেটিও কিনিল। একটা জাপানী পদা, খানচারেক ছবি, খানকতক প্লেট, একটা আয়না, ঝাটা পাথর-বিসানো ছোট একটা আংটি! ছেলেমানষের মত আনন্দে শােধ, জিনিসগালিকে দখলে আনিবার ঝোঁকে যাহাঁই চোখে ভাল লাগিল,তাহাই কিনিল । দাঁও বঝিয়া দ’একজন দোকানদার বেশ ঠেকাইয়াও লইল। ডবল-উইকের একটা পিতলের টেবিল-ল্যাম্প পছন্দ হওয়াতে দোকানীকে জিজ্ঞাসা করিল,-এটার দাম কত ? দোকানী বলিল,-সাড়ে তিন টাকা। অপর বিশ্ববাস***এ-রকম আলোর দাম পনেরো-ষোল টাকা । এরপ মনে হওয়ার একমাত্র কারণ এই যে, অনেকদিন আগে লীলাদের বাড়ি থাকিবার সময় সে এই ধরণের আলো লীলার পড়িবার ঘরে টেবিলে জলিতে দেখিয়াছিল । সে বেশী দর কষিতে ভরসা করিল না, চাের আনা মাত্র কমাইয়া তিন টাকা চার আনা মল্যে সেই মান্ধাতার আমলের টেবিল ল্যাম্পপটা মহা খাশীর সহিত কিনিয়া ফেলিল ! মটের মাথায় জিনিসপত্র চাপাইয়া সে সোৎসাহে ও সাগ্রহে সব বাসায় আনিয়া হাজির করিল ও সারাদিন খাটিয়া ঘরদের ঝাড়িয়া ঝাঁট দিয়া পরিভাকার পরিচ্ছন্ন করিয়া ছবিগলি দেওয়ালে টাঙ্গাইল, সস্তা জাপানী পদাটা দরজায় ঝালাইল, আয়নাটাকে গজাল আটিয়া বসাইল, ফুলদানির জন্য ফুল কিনিয়া আনিতে ভুলিয়া গিয়াছিল, সেগালিকে ধাইয়া মছিয়া আপাততঃ BBDDDDB BB DBD DDSBBBDBDBDD LBkSuD D DDB BBB BDDDBD রাখিল । বাহিরে অনেকদিনের একটা খালি প্যাকবাক্স পড়িয়াছিল, সেটা বুড়িয়া মাছিয়া টেবিলে পরিণত করিয়া সন্ধ্যার পর টেবিল ল্যাম্পটা সেটার উপর রাখিয়া পড়িতে বসিল । বই হইতে মাখ তুলিয়া সে ঘন ঘন ঘরের চারিদিকে খাশীর সহিত