পাতা:অভেদী.pdf/৬৯

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


[ ४० ] সরলার এসকল বাক্য গরলস্বরূপ গৃহীত হইল। উন্নত ব্রাহ্মদিগের মধ্যে কেহ কেছ বলিলেন নারীর কথা গুলি নিতান্ত অগ্রাহ নছে আবার কেহ কেছ বলিলেন মেয়েমানুষ প্রথমে এইরূপ কহিয়া থাকে পরে দোরস্ত হয় । বাবু সাহেব স্বাভাবিক অস্থির তাহাতে আশা পিচাশের হেঁচুনিতে ধড়ফড়াতে লাগিলেন। মাতৃ শোক, ধনশোক ও বন্ধু ঞ্জেকা বাবুর শোক সকলই বিগ ভ—এক্ষণে যাহাতে র্তাহার বfনত হস্তগত হয়েন এই জ্ঞান—এই ধ্যাম । খেয়ে মুখনাই—বসে সুখ নাই—শুয়ে সুখ নাই—কিছুতেই মুখ মাই। এক একবার সুপ। ফাক করিয়া দঁাড়াইয়। সিস্ দেন ও নিশ্বাস ত্যাগ করণস্তর “ডিয়ের সরলা’ বলিয়া ডাকেন । বাবু সাহেব বড় বিবেচক—বিবেচনা করিয়া স্থির করিলেন— ব্রাহ্মদের এ কথা বলা ভাল হয় নাই – তাছার কৰ্ম্ম খণরণব করিয়াছে । মেয়ে মানুষের মন মেয়ে মানুষ শীঘ্র হরণ করিতে পারে অতএব বাটীর নিকটে শ্যাম। মাপ্তি না থাকে তাহাকেই ঘটুকী করা শ্রেয়। সন্ধ্য ন। ছষ্টতে হইতে বাবু সাহেব শ্যামার কুটীরে উপমীত । শ্যাম৷ বলিল—এ কি ভাগ্য —রণ জা বিক্রমাদিত্য ভিকে হাড়িনির কুটীরে ? শ্যাম। গঙ্কর জার্মা কাইতে ছিল-মাথায় কাপড় নাছ-কেশ কতক কাল কতক সাদ।-লুটিয়া পড়িয়াচে, আস্তে ব্যস্তে একখানি পিড আনিয়া দিল । বার সাহেবের টাইট পেন্‌টুলুন— সিতে মশক্ত। ৰায়ু সাংেব লম্বা, শ্যাম বেটে—একটু র্কেীয়া ছইয়া বলছেন-একটা কথা বলি কাহাকেও বলিসন – সরলকে আমার কনে করে দিতে পারিস ? আমার বিষয়