পাতা:অমরনাথ (কৃষ্ণচন্দ্র রায় চৌধুরী).pdf/১২১

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


為為歌 অমরনাথ । নেই । শির চিনে অস্ত্র বসাতে পাল্লেই হল। আমি লাট ম্যাও সাহেবের মূবং গড় চাঁদতে হাজার টাকা দিইচি, আবার ঐ এলাহাবাদে একটা আলুফ্যারেট পাকোর না কি হোচ্চে তাতে কিছু দব । আর এই ছোট লোকের পড়বার একটা পাঠশালা। এতে নাকি লেপটানাটানি গবানর বড় খুশি, কেন না ভদ্র লোকের পড়া বন্দ কোরে সে ছোট লোকের পড়ার উপর বড় লেগেচে । একট চাঁদা কোরে ঐ রেয়ত বেটাদেব টাকাতেই একটা কি দুট পাঠশালা কর। হয় তো আমিও একটা রাজা টাজা হোতে পারি। তার পর এ গবানর চোলে গেলে ও সব উঠিয়ে দেয়া যাবে । উঠিযে দিতে হবে না আপনিই উঠে যাবে। তার পর ঐ টাকাগুলি জমা তুঙ্ক কোরে লওয়া যাবে। ছোট লোক পোড়ে কি কোরবে ? না বিদেই হবে ন চাকরিই হবে। এমনিই যাব লোকের জন্যে জমি পোড়ে থাকে। যাক এখন তোমার সে পাটাপত্র গুল ঠিক ঠাক্ হয়েচে তো ? র্যাড়ে । তা হয়েচে । তবে রেয়তদের পুবের যে সব দাখিলে দেয গিছল সে সব ওবই নামে । সে গুলতে এখন ঘা দেয়া হবে না । ফল ওকে যাতে শীগগির এখান থেকে সবান যায় সেইটে কোৰ্ত্তে হবে। জমি। ওকে একটা ফৌজছুরীতে ফেলতে পাল্লিই ওর যোজ্ঞি ভাসি ইচি। উনি আমার উপর টেঙ্কা দেবার চেষ্টা কোরেছেন যখন তখনই উনি বুনো শুয়রের বায়ে পোড়েছেন। আচ্ছা তুমি এখন যাও, এব একটা ভাল কোরে বিবেচনা কোরে দেখতে হবে । র্যাড়ে । তা আমি যাচ্ছি আমার কি ? আমার কেবল হজুরের জন্যে এত করা রৈতম। [ উভয়ের প্রস্থান ।