পাতা:অমরনাথ (কৃষ্ণচন্দ্র রায় চৌধুরী).pdf/১৫৩

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


$86 অমরনাথ । মতি। তা কাজ কি আমাদের এত কথায়। আমরা উঠে গেলিই হল, তার পর অমরনাথ বাবুর ইচ্ছা হয় উনি আমাদের কাছে যাবেন। [ অমরনাথ, রাধামোহন, র্যাড়েশ্বর ব্যতীত 啤 সকলের প্রস্থান । রাধা । ( র্যাড়েশ্বরের প্রতি রাগপুর্ণ নয়নে ) ভাল, এখনকার মানুষ ত্রিশ বচরের বেশি বাচে না, তোমার পঞ্চাশ বচর হল, তবু কি হয় না ? আর কেন ? এখন কষ্ট ত্যাগ কর । র্যাড়ে। দ্যাখ! তুই বেরে। আমার বাড়ী থেকে । রাধ। তোমার বাড়ী ? ভাল মোর ভাইরে ! তুমি জমিদারের বাড়ী পাঁচ টাকা মাইনে পেতে এইবার দেওয়ানি পদ হেীয়ে আর দেড় টাকা বেড়ে সাড়ে ছ টাকা হয়েচে । তাতে তোমরা এই মাগগির বাজারে তিনজনে ইটু গেড়ে বোসে খাচ্ছে পোচ্ছে, আরও এই আশী হাজার টাকার বাড়ীটে কোলে । তুমি কি অপদেবতা নাকি ? ষাড়ে। তা যা করি তা তোর বাপের কি ? রাধা । কি বলি ! খুনে ! ডাকাত ! তুই জানিস্নে আমি কে ? হয়েচে ভাল । আজি আমি এই র্যtড় নদীপার কোরে গ্রামের উৎপাত ঘোচাই, আজ আমি এই হন্যে কুকুর মেরে গ্রামের ভয় শান্তি করি। ( গাত্রোথনি করিয়া চাদর কোরতা ফেলিয়া উভয় বাহু আস্ফালন করতঃ ) এস এখন দেখি, তোমার বুকের খাচী ভাঙ্গতে আমার কটা লাথি খরচ হয় । র্যাড়ে। (দৌড়ে অমরনাথের পশ্চাতে গিয়া তাহার উভয় বাহু ধারণ করিয়া ) দ্যাথ দ্যাখ, ধর ধর ধর । আমাকে খুন করে যে ? অমর। ( রাধামোহনের হস্ত ধারণ করিয়া ) রাধামোছন! তুমি আমাকে ক্ষমা কর, অামাকে ক্ষমা কর। আমার সম্মুখে এমন হলে তুমি আমাকেও মারলে।