পাতা:অমরনাথ (কৃষ্ণচন্দ্র রায় চৌধুরী).pdf/১৬০

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


অমরনাথ । }{t} বাদ্যস্তর পূষ্প গন্ধ বায়ু সঞ্চালিত । এককালে করে নাসা শ্রবণে মোহিত ॥ মাতিয়ে অমৃতপানে বিদ্যাধরীগণ । হাসিছে নাচিছে হোয়ে পুলকিত মন ॥ তা সবার মধ্যে আমি প্রমোদে মাতিয়ে । করিতে ছিলাম নৃত্য আত্ম পাসরিয়ে ॥ নৃত্যছলে অঙ্গ ভঙ্গী যেমন হইল । ধনুস টঙ্কার রোগ অমনি ধরিল ॥ অমনি অবনী পরে পতন আমার । করিতে হবে না নৃত্য এ জনমে আর !! ( দীর্ঘ নিশ্বাস ) ( গাত্রোথান করিয়া ইতস্তত বিচরণ করিতে করিতে স্থির হইয়া চিন্তা ) আর তো কিছুই উপায় দেখিনে। এক আত্মঘাতী হওয়া, আর দেশত্যাগ করা । প্রথমতঃ আত্মঘাতী হওয়া মহাপাতক । বাস্তবিক আত্মহত্য অার পর হত্য কিছু মাত্র ইতরবিশেষ নেই। উভয়েরই তাৎপৰ্য্য একটি জীব স্বংস। বিশেষতঃ যদি আমি আত্মঘাতী হই, তবে আমার সেই চির দুঃখিনী,— আহা ! মনে কোরেই যেন আমার বক্ষস্থলে কি একটা বাধা উপস্থিত হোয়ে শ্বাস রুদ্ধ হোতে আসচে, আর কথা সরেনা ;–সেই প্রাণসম পতিব্ৰতা, যার জীবন আমার জীবনকে অবলম্বন কোরে অাছে, অমনি লতিকার ন্যায় ছিন্নমূল হয়ে এই বৃক্ষের সঙ্গে পোড় বে! আবার সেই দুটি সহায়-বলহীন বালক বালিকা ঐ লতিকার ফলের স্বরূপ ঐ সঙ্গেতেই শুষ্ক হোয়ে যাবে! তবে আত্মহত্যা আমার এ রিপদের উপায় নয়।