পাতা:অমরনাথ (কৃষ্ণচন্দ্র রায় চৌধুরী).pdf/২৪০

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


অমরনাথ । 忍S> জোচ্ছনার মত, জলছিলি আর একেবারে বুজে গেলি ? হায় হয়, আমি যে এত ছিষ্ট কোরে টাকা জমালেম, বিষোয় কোল্লেম, তা এখন সব চুলোয় দিলি ? অারে আমীর কপাল ! (সুশীলের প্রতি) তুই বেটা বড় বজাং,— বড় হারামজাদ । তুই ওকে কেন দিলি ? তুই কেন খেয়ে ফেনিনে ? তোরা ঘর মৃদ্ধ সবগুলি হীরামজাদার জড় । মুশীল। আমি গালে দিলে গাল টিপে বার কোর্তেন, গলায় থাকলে গল। টিপে বার কোৰ্ত্তেন, পেটে থাকলে পেট চিরে বার কোর্তেন। র্যাড়ে । তোদের ঐ ঝাড়ের মতন কথাই যে এই, তোদের ঐ ঝাড়ের মতন (মুশীলের গালে এক চড় মারিয়া ) কথাই ষে এই। স্বশীল। উহুহুহ ! (রোদন) গিয়িচি, গিয়িচি। বাপুরে! আমার বুঝি একুটা দাত ভেঙ্গে গেছে। ( কমলবাসিনী পাগলিনীর ন্যায় আলুলায়িত কেশে প্রবেশ ) কমল। (মুশীলকে উভয় হস্তে বেষ্টন করিয়া লইয়া যাইতে যাইতে ) কে আমার বাছাকে মাল্লে ? কে দুখিনী অনাথিনীর বুকে ছুরি মারলে । আমার কেউ নেই। হে মা দুর্গ ! তুমি সহায় হীনের সহায়, আমার এই হৃদয় (হৃদয়ে করপ্রদান) তোমার পাদপদ্মে সমর্পণ কোরিচি। মা, আমার অর্থ নেই সামর্থ্য নেই । আমার কাছে কারও লোভেরও কারণ নেই, ভয়েরও কারণ নেই! তবে কেন আমার উপর এ অত্যাচার। [ সুশীল এবং চারুকে লইয়া প্রস্থান । র্যাড়ে । ( স্বগত) উহ! সুন্দুরি বটে। ছোড়াকে মারাটা ভাল হয় নি। তা নৈলে রসগোল্লার বিষয়টা কাটিয়ে নেয়া যেত। গোপী । ( রাগান্ধ হইয়া এক বৃহৎ লাঠি লইয়া ) মা তোমার কিছু