পাতা:অমৃত গ্রন্থাবলী প্রথম ভাগ.pdf/২৬৭

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


২৬৮ তবে তিনি খরিতার প্রত্যুত্তরের প্রতীক্ষা না कद्विब्राहे २झे मादचद्ध ७झे छ१कब्र फूश* वांग्नां আপনাকে বিপদগ্ৰস্তু করিলেন, এ কথা কি বিশ্বাসযোগ্য ? ধিক সেই কুচক্রিগণকে, যাহারা মহারাজার মস্তকে এই কলঙ্ক অর্পণ করিয়াছে!—ধিক সেই নিরাশয় সংবাদপত্রসম্পাদকগণকে, যাহারা মহারাজের বিরুদ্ধে এই ঘোর মিথ্যাপবাদ দেশে দেশে রটন করিয়াছে ! এবং যে সকল অর্থলোভী সেই কুচব্রুিদেব পক্ষসমর্থন করিয়াছে, তাছাদিগকেও ধিক্ । কমিশনার মহোদয়গণ এখন একবার স্থিরচিত্তে বিবেচনা করিয়া দেখুন, কি সামান্ত সংশয়ের উপর নির্ভর করিয়া, কি মিথ্য সাক্ষীর সাক্ষ্যে বিশ্বাস করিয়া নিরপরাধ নিৰ্ব্বিরোধ মহারাজ মলহাররাও গাইকোয়াড়কে অপমানের সহিত অপদস্থ করা হইয়াছে —স্বাধীনতা হরণপূর্বক কারাগারে কঠোর যন্ত্রণ দেওয়া হইয়াছে, তাহার সৰ্ব্বস্ব আবদ্ধ করা হইয়াছে --কমিশনার মহোদয়গণ একবার দেখুন। একজন মহম্বংশীয় মহারাজ সিংহাসনচ্যুত হইয়। নিতান্ত অসহায় অবস্থার সুবিচারাকাঙ্ক্ষায় আপনাদিগের সম্মুখে নিজ নির্দোষিত নিজমুখে ব্যক্ত করিলেন এবং আমিও তাহার পক্ষ সমর্থনাশয়ে আমার নিজের বিশ্বাস আপনাদিগের গোচর করিলাম। যদি আমার মনের ভাব আপনাদের হৃদয়ঙ্গম করিতে সক্ষম হইয়া থাকি, যদি ঐ নিরীহ প্ৰপীড়িত রজবংশধরের নির্দোধিতার বিষয়ে আমার অস্তঃকরণের সহিত আপনাদিগের অন্তঃকরণের ঐক্য হইয়া থাকে, তাহা হইলে আমি নিশ্চয় বলিতে পারি, মহারাজ সগৌরবে লুপ্ত সিংহাসন পুনঃ প্রাপ্ত হইবেন। (উপবিষ্ট) স্কোব। কমিশনার মহোদয়গণ ! আমার অমৃত-গ্রন্থাবলী । अछि cद सक्रङग्न छब्रि नास्त्र श्हेब्राप्झ, उश्। সম্পন্ন করিতে আমি নিতান্ত অক্ষম। কিন্তু কৰ্ত্তব্যের অম্বুরোধে আমার মনের ভাব ও বিশ্বাস কিঞ্চিং ব্যক্ত করিতে বাধ্য হইলাম। আমার বিজ্ঞতম বন্ধু সাৰ্বজেন্ট ব্যালেণ্টাইন মহাশয়ের বক্ততার উপর অধিক কিছু বলিবার নাই । তিনি ভারতবর্ষে অগসিয়া অামাদের মুখোজ্জল করিয়াছেন - কেবল আমাদের কেন,সমস্ত যুরোপের মুখোজ্জ্বল করিয়াছেন । যে বিদ্যার প্রভাবে তিনি ইংলণ্ডের ব্যারিষ্টারদিগের মধ্যে সর্বপ্রগণ্য হইয়াছেন, সেই বিদ্যাবলে ভারতবর্ষে আসিয়া, এই মনোহর বক্ততা স্বারা, এ স্থানেও অক্ষয় কীৰ্ত্তি স্থাপন করিয়া গেলেন । কিন্তু ভারতবর্ষে এই তা’র প্রথম আগমন, সুতরাং ভারতবাসীদিগের আচার-ব্যবঙ্গরের বিষয় তিনি সবিশেষ অবগত নহেন। তজ্জন্যই তিনি কতিপয় বিষয়ে ভ্রমে পতিত ' হইয়াছেন। প্রথমতঃ তিনি পুলিসের উপর বিলক্ষণ দোষারোপ করিয়াছেন, কিন্তু যে সকল ব্যক্তি র্তাহার সমক্ষে পুলিসের নিন। করিয়াছে, নিশ্চয়ই তাহারা কখন না কথন ভয়ঙ্কর অপরাধ করিয়া পুলিসের নিকট বিলক্ষণ উপদেশ লাভ করিয়াছে—কেন না, আমি বিলক্ষণ অবগত আছি, এ স্থানের পুলিসে অতি মহৎ এবং ভদ্র ব্যক্তিগণ কৰ্ম্মচারীরূপে নিযুক্ত আছেন ; তাহাদিগের সম্মানসূচক উপাধির প্রতি দৃষ্টিপাত করিলেই তাই স্পষ্ট বুঝিতে পারা যায়। আরও বিবেচনা করুন, গাইকোয়াড়কে দোষী করায় পুলিসের স্বার্থ কি ?—যে কেহ হউক না, একজনকে অপরাধী নির্দেশ করিলেই র্তাহারা এ বিষম কার্য হইতে নিস্কৃতি পাইতেন। হেমৰ্চাদ-ফতেচাদ ষে পুলিসের বিপক্ষে বলিয়াছে, সে কেবল তাহার একজন প্রধান