পাতা:অমৃত গ্রন্থাবলী প্রথম ভাগ.pdf/২৮১

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


جس3b नद्रचडौ । बरत्रद्र भत्रण cएकू८डांभांद्र प्रजन । *हे शत्न ३श् बांश भाहेत्व इडन । এখনও কয়েকজন আছে মতিমান। তারা তোরে সদা করে অতি প্রিয় জ্ঞান। বঙ্গভাষা। আশ্বাসে বিশ্বাস মা গো রাখিব তোমার । মধুর মধুর কথা বল বার বার ॥ সরস্বতী। জনক জীবনকালে, পুত্র ফেরে অবহেলে । পিতার মরণে নিজ কাৰ্য্য বুঝি লয়। ছিল বিষ্ঠার সাগর, না ছিল অভাব ७ों, এখন দেখিবে বঙ্গে নব অভূদয়। অর্থকরী পরভাষা, তাই তাহাঙ্গে পিয়াসা, মাতৃভাষে ভালবাসা নয় মূলহীন। প্রথম কথার ছলে, শিশুকালে মা মা বলে, যেই ভাষে সে ভাষা কি ভুলে কোন দিন ? মনের সনেতে মন, যেই ভাষে মালাপন, ষে ভাষায় হাসা কাদা নিশার স্বপন । বঙ্গের সস্তানগণ, মোহঘোরে অচেতন, একদিন একদিন চিনিবে রতন ॥ ধরার রোদন-ধারা, হেরে তুমি আত্মহারা, গোলোকে পুলক দেখ আসি মম সনে । পুণ্যাত্মা ঈশ্বর অস্তুে, ঈশ্বরের পদপ্রাস্তে, বিষ্ঠার সাগর বসে শাস্তি-নিকেতনে ॥ [ সরস্বতী ও বঙ্গঙাষার প্রস্থান ।

  • mom

দ্বিতীয় দৃশ্য। - بصممسينما ستنجسم. कfणकांठ, निभम्णांब्र घाः । (একজন নাগরিকের প্রবেশ )

    • नt१ । श कि इटैर्फत ! कि भब्रिडान ।

বঙ্গভূমি আজ শূহ হ'ল বঙ্গভাষা আজ পিতৃহীন হ’ল, বঙ্গবাসীর প্রতিদ্বিীন সমুজ্জ্বল অমৃত-গ্রন্থাবলী । প্রতিভাপূর্ণ গৌরবের ধন আজ করাল কালের যবনিকাত্তরালে অন্তৰ্হিত হ’ল ! যার বর্ণপরিচর করে ধরিয়া মাতৃভাষার প্রথম সোপানে আরোহণ করিয়াছি, যার ‘সীতাঁর বনবাস’ ‘বেঙ্গল’ পাঠে বুঝিয়াছি যে, বঙ্গভাষা অবজ্ঞার নহে, আদরের সামগ্রী, ৰিনি আবর্জনাদি বর্জন করিয়া দেবভাষা-প্রমুভ মাতৃভাষাকে সুললিত মুনার সাজে সাঙ্গাইয়া নবীন জীবন দান করিয়াছিলেন, তাহার চিতাধূম দৃষ্টি রোধ করিয়া গগনে উখিত হইতেছে আজ তাই দেখিতেছি। ওহে, চক্ষে দেখিতেছি, তবু ষে এ কথা মন বিশ্বাস করিতে চায় না। এ কি সত্য ! সত্য সত্যই কি বিষ্ঠাসাগর নাই। ঐ বহিসংযুক্ত কাষ্ঠভূপ সত্যই কি সেই সরস্বতীর বরপুত্রের শব ভয়ে পরিণত করিতেছে ? বিপদের বন্ধু অfর কোথায় পাব ! সংসার-সময়ের বিষম সমস্যায় কে আর আমাদিগকে সৎপং মর্শ দান করিবে ? সুমিষ্ট শাসনে সেই গুৰুদেৰ বিনা কে আর আমাদিগের শতদোষ সংশোধন করিবে ? রহস্যপূর্ণ ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র কৌতুককথায় কে আর আমাদিগকে সংশিক্ষা প্রদান করিবে ? মানব-দেহে অনাথনাথ হয়ে অনাথকে কে আর আশ্রয় দিবে ? হা বিদ্যাসাগর ! হা বিদ্যাসাগর। নেপথ্যে । হা বিদ্যাসাগর! সাগর । (২য় নাগরিকের প্রবেশ ) ২য় নাগ। না, দেখা যায় না, দাড়িয়ে আর দেখা যায় না! এই ষে ভাই তুমি এখানে, আমিও পালিয়ে এলেম, এ ভীষণ, মৰ্ম্মঘাতী দৃপ্ত দেখে কার সাধ্য ? ( কতিপয় নাগরিকের প্রবেশ ) ১ম নাগ। স্ত্রীলোকের বলে যে, দাত্ত ধাকৃতে দাঙের ম র্যাদা বোঝা যায় না, তা হা বিদ্যা