পাতা:অমৃত গ্রন্থাবলী প্রথম ভাগ.pdf/২৮৮

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


বিলাপ ! কাছে যাব, বড় আশায় ছাই পড়ল, গরিব ব্ৰাহ্মণের অস্কৃষ্টে বিদ্যাসাগর চ'লে গেল । দয়া ! ঠাকুর, কঁদিলে যদি সে আসে, আমিও কঁদি ব’সে । যাহবার তা হয়ে গেছে, দুঃখ আর করবে মিছে ; ভাব দয়াময় হৃষীকেশে, কাল ষাবে না দুঃখ-ক্লেশে । সাগরের শিষ্য অগণন, আর যত ভক্তঞ্জন রাখতে তার স্মরণ করেছে মনন দেবে অনাথে আশ্রয়, ভেব না, ঘূৰ্চবে ভয় খুচবে ভয়৷ ছেলেটীর হাতে ধ’রে যাও বাছ ফিরে ঘরে, কঁাদছ যার মরণে, তার স্মরণে ফেলে দুটে ফোটা অশ্রুঞ্জল— * ডাকলে পরে মঙ্গলময়ে সবই হবে সুমঙ্গল । ব্রাহ্মণ। এস দাদা, ফিরে চল আর কি । হা মধুসূদন, হা ব্রাহ্মণের অদৃষ্ট । বিদ্যাসাগর গেল, কি হল, কি হল ! ব্রাহ্মণ ও বালকের প্রস্থান । ( সাওতালগণের প্রবেশ ) ১ম সীও । সত্ত্ব নাশ ভাই সত্ত্বা নাশ ভাই । ২য় সাও । মল ঠাকুর গোসাই, মল ঠাকুর গোসাই । ৩য় সীও । কাল যমরার মুখে ছাই, মুখে झहेि । 4. ৪র্থ সাও । মোরা কোথা যাই আর কার थाहे । , সকলে । চল জঙ্গল যাই আর পণ্ডিত নাই, পণ্ডিত মাই। ২৮৯ গীত । কি কঠিন জান তোয় দেও রে । যমরা হামরা বাপ ছিনি নিলি রে । সাগর মোদের বাবা, সে সাগর মোদের মা, গেল বাপ মাতারি মোর কৌথ যাই রে । পণ্ডিত বাবা যেমন, মিলে না দুটা তেমন, জলা কপাল সাওতালে কে আর পালে রে । কে খেলাবে আর মুঠ ভাত, ঘুমবে কে আর লিয়ে হাত, জঙ্গলী যান; ফের জঙ্গলী হব ৱে । খেলিয়া ছেলিয়া সাথ,শিখায়ে কে তীবী বাত, রাতকা করবে দিন পণ্ডিত বিনা রে । চল পাহাড়মে চড়ে, সব কই গির পড়ে, জানসে আর কাজ নাই পণ্ডিত গিয়া রে ॥ প্রস্থান । দয়া । অfহা বাঘের সনে থাকে বনে এরণও ব্যথা পেলে প্রাণে । কোথায় গেল বিদ্যাসাগর তোমার জন্তে সবাই কাতর আশ্রয়বিহীনা করি পালালে আশ্রয়— কঁদিতে রাখিয়া গেলে দয়ারে ধরrয় ॥ গীত । একবার এসে দেখে ঘ} ও { আকুল সকলে করুণ-নয়নে চাও ৷ তোমার বিচ্ছেদে, কত লোক র্কাদে, সে সবারে হেরে কোমল অস্তরে, দেখ দেখি, দেখি ব্যথা পাও কি না পাণ্ড । গোলোক ত্যজিয়ে, ভুলোকে আসিয়ে, অতি শোক’ভরে প্রতি ঘরে ঘরে, শব সম পড়ে সবে, কোলে তুলে নাও । হা বিদ্যাসাগর, দয়া যে কাতর, তোমায় বিছনে, আমি বলহীনে, भग्नोद्र श्रt६ोंद्र श {८घ्रं न ब्रां८द्र दै{5ों २ ।। [ প্রস্থান ।