পাতা:অরক্ষণীয়া - শরৎচন্দ্র চট্টোপাধ্যায়.pdf/২৩

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


YG9 अद्भक्ौशों চলিয়া আসিয়া ঘরের চৌকাঠের ভিতরে একটা পা দিয়া কহিলেন, মতলবটা ত তোমার এই মেজবেী-না খেয়ে উপোস করে ছোটকর্তা অফিসে যাক, সন্ধ্যাবেল পিত্তি পড়ে জ্বর হয়ে বাড়ি ফিরে আসুক । তারপর নিজের যেমন হয়েচে, তেমনি সর্বনাশ আরো একজনের হোক । দুর্গামণি মনে মনে শিহরিয়া কহিলেন, এ কপাল যার পুড়োচে দিদি, সে অতিবড় শত্রুর জন্যেও আমন কামনা করে না । কিন্তু কি করেচি তোমার যে, এত কটু কথা আমাকে উঠতে বসতে শোনাচ্চ ? স্বর্ণ হাত নাড়িয়া, মুখ অতি বিকৃত করিয়া কহিলেন, কচি খুকী যে ! আমাকে বলতে হবে।--কি করেচ ? সাড়ে-সাতটা বাজেটাইমের ভাত রাধবে কে ? 1. অতুল এতক্ষণ অবাক হইয়া শুনিতেছিল। তাহার বড় মাসিকে সে ভাল করিয়াই চিনিত ; এইজন্য কথাবার্তা ও বড় একটা কহিত না । কিন্তু এখন আর সািহত্যু করিতে না পারিয়া নিজেই প্রশ্নের জবাব দিয়া বসিল। কহিল, সত্যি কথা বললে তুমিই রাগ করবে মাসিমা ; কিন্তু কপাল নেহাৎ না পুড়লে আর কেউ তোমাদের ভাত খেতে আসে না, সে-কথা তোমরাও জানো, পাড়ার আর পাঁচজনেও জানে ; কিন্তু আজি যাবার দিনটায় হতভাগিনীদের একটুখানি মাপ করলে তোমাদের মহাভারত অশুদ্ধ হয়ে যেত না, মাসিমা । হঠাৎ আতুলের কথার ঝাজে দুই জায়েরই বিস্ময়ের অবধি রহিল। না। মিনিটখানেক কাহারও মুখ দিয়া কথা বাহির হইল না। তার পরে স্বর্ণ কহিলেন, কোলকাতা থেকে তুই কি আমাদের সঙ্গে ঝগড়া করতে এসে হাজির হয়েচিস নাকি রে ? ছোটবেী বলিল, ঝগড়া করতে আসবে কেন দিদি ? ওর মেজমাসিকে আমরা হরিপালে গঙ্গাযাত্রা করাচ্চি, ও তাই যে শেষদেখাটা ○研々び5 (áびW51 ও, তাই বটে ?