পাতা:অষ্টাঙ্গ হৃদয় - বাগ্‌ভট.pdf/১০৪

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


(kR অষ্টাঙ্গাহৃদয় । * [ ৯ম অঃ gg uBDiDDDBD D BBDBD BBB BBB BDS S BYS DBzS DD DD LLD YY LDDL বহুল । ( পার্থিব দ্রব্যে অন্যান্য গুণ বিদ্যমান থাকিলেও গুরুত্বাদি গুণের আধিক্য থাকে । ) { ইহা দ্বারা শরীরের গুরুতা, স্থৈৰ্য, নিবিড়তা ও পুষ্ট সংসাধিত হয় ॥৮ s আপ্য দ্রব্য-দ্রব্য, শীতুল, গুরু, স্নিগ্ধ, মৃদু, ঘন ও রসগুণ বহুল। এই জলীয় দ্রব্য স্নিগ্ধকর, শ্ৰাবজনক, ক্লেদকারক, আহ্লাদজনক ও মলাদির বিবন্ধকারক ॥৯ আগ্নেয় দ্রব্য-রক্ষ, তীক্ষ, উষ্ণবীৰ্য্য, বিশদ, সুন্ম (সূক্ষ্মস্রোতেগামী) ও রূপগুণবহুল। ইহা দ্বারা শরীরে দাহ, কান্তি, বর্ণপ্ৰকাশ ও পরিপাক হয় ॥ ১০ বায়ব্য দ্রব্য-রক্ষ, বিশদ, লঘু ও স্পর্শগুণবহুল। ইহা শরীরের রেীক্ষা, লঘুত্ব, বৈশদ্য, বিচার ও গ্লানিকারক ৷৷ ১১ নাভিস দ্রব্য-সুন্ম, বিশদ, লঘু ও শব্দগুণবহুল। ইহা শৌৰ্য্যকারী (পিত্তীভূত দ্রব্যে ছিদ্র করে।) ও লঘুত্বজনক । এই পঞ্চভুতারন্ধ-গুৰ্বাদিগুণযোগ হেতু এবং নানা প্রয়োজন ও নানাযুক্তি বশতঃ জগতে এমন কোন দ্রব্য দেখা যায় না, যাহা ঔষধ নহে। অর্থাৎ ধূলি বালি প্ৰভৃতি সমস্ত দ্রব্যই ঔষধ বলিয়া গণ ॥ ১২ যে দ্রব্যে অগ্নি ও বায়ুর ভাগ:অধিক থাকে, তাহ প্ৰায়ই উৰ্দ্ধগামী হয় ; যেমন মদন ফলাদি বমনকারক দ্রব্য। আর যাহাঁতে পৃথিবী ও জলের ভাগ অধিক থাকে, তাহা প্ৰায় অধোগামী হইয়া থাকে ; যেমন তেউড়ী প্ৰভৃতি ৷৷ ১৩ দ্রব্য বিষয়ে যাহা বক্তব্য, তাহা খালা হইল। অতঃপর রসভেদীয়াধ্যায়ে রসের প্রকার ভেদ সকল উপদেশ দিব। বহুবক্তব্য হেতু এখানে বলা হইল না৷ ১৪ : এক্ষণে বিপাকাদি হইতে বীৰ্য্যের প্রাধান্ত হেতু প্ৰথমে বীৰ্য্যের কথা বলা যাইতেছে। কোন কোন তন্ত্রকার দ্রব্যাশ্ৰিত বীৰ্য আট প্রকার বলিয়া থাকেন ; যথা—গুরু, স্নিগ্ধ, হিম, মৃদু, লঘু রূক্ষ, উষ্ণ ও তীক্ষ। মহর্ষি চািরক বলেন--দ্রব্যের যে স্বভাব দ্বারা কোন ক্রিয়া নিম্পাদিত হয়, সেই স্বভাবই বীৰ্যপদবাচ্য। দ্রব্য হইতে যে কোন কৰ্ম্ম সম্পন্ন হয়, তাহা বীৰ্য্যকৃত জানিবে। কারণ হীনবীৰ্য্য দ্রব্য কোন কাজ করিতে পারে না ৷৷ ১৫১৬ রস বিপাকাদিতে বীৰ্য্যসংজ্ঞা না দিয়া গুর্বাদি আটটি গুণে যে বীৰ্য্যসংজ্ঞা, দেওয়া হইয়াছে, তাহা মুখাৰ্থই হইয়াছে। কারণ বীৰ্য্যেরই কাৰ্যকরণে সামর্থ্য দৃষ্ট হয়। আর সমগ্র গুণের মধ্যে ঐ আটটা গুণই সারভূত (চিরস্থায়ী, জঠরাগ্নিসংযোগেও ইহারা মধুৱাদি স্বভাব ত্যাগ করে না ), অন্য মন্দ সান্দাদি গুণ হুইতে অধিক শক্তিশালী এবং ব্যবহারার্থ উহাৱা (গুৰ্বাদি গুণই) প্রধান ও রসাদির অগ্ৰে গ্ৰহণীয়। বিশেষতঃ গুর্বাদি গুণ দ্বারা আয়ুৰ্বেদশাস্ত্ৰে বহু দ্রব্য ও রসাদির গ্রহণ হইয়া থাকে। এই জন্য উক্ত গুৰ্বাদি গুণাষ্টক বীৰ্য নামে অভিহিত হয় ॥১৭ পূৰ্ব্বোক্ত কারণ সমূহের বৈপরীত্য হেতু রসাদির বীর্ঘ্য সংজ্ঞা হয় না। অর্থাৎ রসাদিতে সারত্ব নাই (কারণ জঠরাগ্নি সংযোগে রসের পরিবর্তন হইয়া রসান্তরোৎপত্তি হয় )। রসাদিতে শক্তযুৎকর্ষ নাই (কারণ, রসন্থ গুৰ্ব্বাদি শক্তি দ্বারাই রস স্বকৰ্ম্মসম্পাদনে সমর্থ হয়)। আর ব্যবহারার্থ গুর্বাদির ন্যায় রসাদির মুখ্যত্ব বহুগ্ৰহণত্ব ও অগ্ৰগ্ৰহণত্ব নাই। এই সমস্ত কারণে রসাদিতে বীৰ্য্য সংজ্ঞা হয় না। সুতরাং গুর্বাদিই বীৰ্য্য ॥১৮ 馨