পাতা:অষ্টাঙ্গ হৃদয় - বাগ্‌ভট.pdf/১১২

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


Vo অষ্টাঙ্গাহৃদয় । [ >>ve VIN: উক্ত গলগণ্ডাদি রোগ সমূহ এবং অল্প পরিশ্রমে অধিক শ্ৰান্তি ও শ্বাস জন্মে। ইহাতে পােছ স্তন ও উন্দর ঝুলিয়া পড়ে ॥ ১০ অস্থি প্ৰবৃদ্ধ হইলে অধ্যস্থি ও অধিদন্ত রোগ জন্মে। মজ্জা বৰ্দ্ধিত হইলে নেত্র ও দেহের গৌরব এবং অঙ্গুলি সন্ধিতে স্থূলমূল ও কৃচ্ছ্বসাধ্য পিড়কা সমূহ উৎপন্ন হয়৷ ১১ শুক্র বৰ্দ্ধিত হইলে অত্যন্ত স্ত্রকামিতা ও শুক্রাশ্মরী রোগ জন্মে। > R পুৱীষ বৰ্দ্ধিত হইলে উদরে আত্মান (ফাপ), আটোপ (গুড় গুড় করিয়া পেট ডাকা ), ভার ও বেদনা হইয়া থাকে ৷ ১৩ মুত্র বৰ্দ্ধিত হইলে বস্তিদেশে বেদন (টনটিনানি ) হয় এবং প্রস্রাব করিলেও বােধ হয় যেন - প্রস্রাব করা হয় নাই (অর্থাৎ মূত্ৰত্যাগ না করিলে যে সকল লক্ষণ প্রকাশ পায়, প্রস্রাব করিলেও সেই সকল লক্ষণ বিদ্যমান থাকে।) ১৪ خ স্বেদ প্ৰবৃদ্ধ হইলে অত্যন্ত ঘৰ্ম্ম, শরীরে দৌৰ্গন্ধা ও গাত্ৰকণ্ডু হয়। নেত্ৰমল ও নাসাকর্ণাদির মল বৰ্দ্ধিত হইলে তত্তং মলের বাহুল্য হেতু সেই সকল মলাশয়ের গুরুত৷ কাণ্ডু ও ক্লেদাদি উপদ্রব জন্মে || ১৫ বাতাদি বৰ্দ্ধিত হইলে যে সকল লক্ষণ প্ৰকাশ পায় তাহ। বলিয়া এক্ষণে উহার ক্ষীণ হইলে যে সকল লক্ষণ প্ৰকাশ করে তাহা বলা যাইতেছে। বায়ু ক্ষীণ হইলে (স্ব-প্রমাণ অপেক্ষা হীন হইলে ) অঙ্গের অবসাদ (কাৰ্য্যে অসামর্থ্য), বাক্যের অল্পতা, শারীরিক চেষ্টর নূ্যনতা, জ্ঞানের অভাব এবং শ্লেষ্মা বৰ্দ্ধিত হইলে অগ্নিমন্দ্যিাদি যে সকল রোগ উৎপন্ন হয়, সেই সকল রোগ জন্মিয় থাকে ৷ ১৬ ” পিত্ত ক্ষীণ হইলে অগ্নিমান্দ্য, শীতবোধ ও কান্তির হানি হইয়া থাকে। কফ ক্ষীণ হইলে ভ্রম (পাঠান্তরে-শ্রান্তিবােধ ), হৃদয় মন্তক প্রভৃতি শ্লেষ্মস্থান সমূহের শূন্যতা, হৃদ্রোগ এবং সন্ধি সকলের শিথিলতা হইয়া থাকে ৷ ১৭ রস-ধাতু ক্ষীণ হইলে শরীরের রূক্ষতা, ভ্রম (পাঠান্তরে-শ্রম), শোষ, গ্লানি ও শব্দাসহিষ্ণুতা (উচ্চশব্দ শ্রবণে বিরক্তি) হয়। রক্ত ক্ষীণ হইলে অন্নদ্রব্যে আকাঙ্ক্ষা, শীতাভিলাষ, শিরাশৈথিল্য ও রুক্ষতা ; মাংস ক্ষীণ হইলে নেত্রির গ্লানি, সন্ধি-বেদন এবং গণ্ডস্থল ও ফিকের (পাছার) শুষ্কতা ; মোদঃ ক্ষীণ হইলে কটাদেশের স্পর্শানভিজ্ঞতা,প্লীহার বৃদ্ধি ও অঙ্গে কৃশতা অস্থি ক্ষীণ হইলে অস্থি সমূহে সূচীবেধবদ বেদন এবং দন্ত কেশ ও নখাদির পতন; মজ্জা ক্ষীণ হইলে অস্থি সমূহে ছিদ্র, ভ্রম ও অন্ধকার দর্শন ; শুক্র ক্ষীণ হইলো মৈথুন সময়ে বিলম্বে শুক্রের বা রক্তের ঋলন, কোষৰয়ে অত্যন্ত বেদন এবং লিঙ্গে ধূমনিৰ্গমবৎ প্ৰতীতি অর্থাৎ লিঙ্গে অত্যন্ত জ্বালা হইয়া থাকে ৷ ১৮-২১ পুৱীৰ ক্ষীণ হইলে বায়ু শব্দের সহিত কুক্ষিতে ভ্ৰমণ করে, এবং অন্ত্র সমূহকে বেষ্টনব্যুৎ পীড়ায় পীড়িত করিয়া উর্কে গমনাগমন করে, ইহাতে হৃদয় ও পার্থে অত্যন্ত বেদনা হয় ॥ ২২ মূত্র ক্ষীণ হইলে ‘অতি স্তষ্টে বিবৰ্ণ বা রক্তমিশ্রিত মুত্র নির্গত হইয়া থাকে। স্বেদ কিমিয়া গেলে রোম সমূহের পতন, রোমের স্তব্ধতা ও চৰ্ম্মের স্ফুটন (চৰ্ম্ম ফাটা ফাটা) হয় ॥ ২৩ অতি সুন্ম দৃষিকাদি মল সমূহের ক্ষয় লক্ষণ সহজে বোধগম্য হয় না ; তবে তত্তৎ মলাশয়ের শুষ্কতা, তোদ, শূন্যতা ও লাঘব স্বারা উহাদের ক্ষয় লক্ষণ অবগত হুইবে ॥ ২৪ N