পাতা:অষ্টাঙ্গ হৃদয় - বাগ্‌ভট.pdf/১১৫

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


>> Ver.2 ] সূত্ৰস্থান । VV) ক্ৰোধ, ক্ষুধা, চিন্তা, শোক ও পরিশ্রমাদি দ্বারা ওজঃপদার্থের ক্ষয় হইয়া থাকে। ওজঃক্ষা হইলে মানব ভীত, দুৰ্বল, নিয়ত চিন্তাপরায়ণ, ব্যথিতেন্দ্ৰিয়, কান্তিহীন, বিষন্নমনা, রুক্ষ ও ক্ষীণ হইয়া থাকে। ওজঃক্ষয়ে জীবনীয় ঔষধ, দুগ্ধ, মাংসরস ও ঘূত প্রভৃতি ঔষধ প্রয়োগ করিবে। ওজো বৰ্দ্ধিত হইলে দেহের তুষ্টি পুষ্টি ও বলের সম্যক বৃদ্ধি হয় ॥ ৪০৷৪১ • • ** পুরুষ যে অন্নে দ্বেষ করে সেই দ্বিষ্ট অন্ন ত্যাগ করিয়া এবং যে, অন্ন অভিলাষ করে সেই অভিলষিত অবিরোধী অন্ন সেবন করিয়া সেই সেই দোষের বৃদ্ধি• ও ক্ষয়কে জয় করিবে । ( অর্থাৎ যে দোসের বৃদ্ধি হইলে যে দ্রব্যে অশ্ৰদ্ধা হয় তাহা ত্যাগ করিয়া সেই দোষের বৃদ্ধিকে জন্ন করিবে এবং ষে দোয্যের ক্ষয় হইলে যে দ্রব্যের প্রতি অভিলাষ জন্মে তাত ভোজন করিয়া সেই ক্ষত্ৰকে নষ্ট করিবে । ) || ৪২ O দ্বেন্যান্ন ত্যাগ্ল ও ইষ্টান্ন ভোজন দ্বারা ব্ধি হেতু দোষের বৃত্ত্বি ও ক্ষয় নষ্ট হয় তাহ। বুল। যাইতেছে। দোষ সমূহ বন্ধিত হইলে বিপরীতগুণবিশিষ্ট দ্রব্যে এবং ক্ষীণ হইলে সমানগুণান্বিত দ্রব্যে প্রায়ই রুচি জন্মাইয়া থাকে। মুর্থ ব্যক্তি তাহা লক্ষ্য করিতে পারে না । ( যেমন বায়ু বৰ্দ্ধিত হইলে স্নিগ্ধামধুর দ্রব্যে এবং বায়ু ক্ষীণ হইলে রুক্ষকষায়দি দ্রব্যে অভিলাষ হয়। পিত্ত প্ৰবৃদ্ধ হইলে শীতমধুরীরূক্ষতিক্তকষায় দ্রব্যে এবং ক্ষীণ হইলে অন্ন লবণ কটু দ্রব্যে গ্ৰীতি হয়। শ্লেষ্মা বন্ধিত হইলে রুক্ষয়কটুতিক্ত দ্রব্যে এবং ক্ষীণ হইলে সিন্ধান্নলবণ দ্রব্যে রুচি হইয়া থাকে। সেই জন্য বিপরীতগুণান্বিত দ্রব্যের সেবন দ্বারা দোষের বৃদ্ধি এবং সমানগুণান্বিত দ্রব্য সেবন দ্বারা দোষের ক্ষয় ও জয় কঁরিবে। কখন কখনও ইহার ব্যতিক্রমও হইয়া থাকে, সেই জন্য মুর্থ ব্যক্তি দোষের হ্রাস বৃদ্ধি স্থির করিতে পারে না। ) ॥ ৪৩ ' দোষ সকল বৃদ্ধিত হাঁটুলে সুকীয় বলানুসারে স্বস্ব লক্ষণ প্রকাশ করে এবং ক্ষীণ হইলে নিজ নিজ লক্ষণ ত্যাগ করে। আর সমদোষ (স্বপ্রমাণস্থদোষ) শরীর মুকুল স্বকীয় কৰ্ম্ম (উৎসাহাদি) সম্পাদন করিরা থাকে ॥ ৪৪ ' যে সকল দোষ সমভাবে স্বপ্রমাণে অবস্থিত হইলে শরীরের বৃদ্ধি করে, সেই সকল দোেষই বৈষম্যাবস্থা ( ক্ষয় বৃদ্ধি ) প্ৰাপ্ত হইলে শরীর নষ্ট করিয়া থাকে। অতএব হিতজনক আহার বিহারাদি দ্বারা সেই দোষকে ক্ষয় বা বৃদ্ধি হইতে • রক্ষা করিবে। অর্থাৎ দোয্যের বদ্ধক' বা ক্ষয়কারক আহারবিহাৱাঢ়ি কুরিবে না। ॥ ৪৫ সুত্ৰস্থানে একাদশ অধ্যায় সমাপ্ত ৷ ‘ ·