পাতা:অষ্টাঙ্গ হৃদয় - বাগ্‌ভট.pdf/১২৬

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


A8 अथैांत्रश् । [ seभ अs বিষের উৎপত্তি হয়, সেইরূপ অতিদুষ্ট দোষসমূহের পরস্পর মিশ্ৰীভাব হেতু আমের উৎপত্তি হইয়া থাকে। সেই আমের সহিত সংযুক্ত, বাতাদিদ্বারা দুষিত দোষ ও দূস্য পদার্থক সাম । কহে। জরাদি যে সকল রোগ সেই সামদোষদুষ্য হইতে উৎপন্ন হয়, , তাহাদিগকে । जांबवांश्रं क८छ् ॥ २७-२z , , অনিহঁরণীয় সামদোয়ের নির্দেশ। সামদোষ যদি ’সকল শরীরে ব্যাপ্ত, রসরক্তাদি ধাতু সমূহে লীন, স্বস্থান হইতে অচলিত হয়, তবে তাহাকে বমন বিরোচনাদি দ্বারা বিশোধিত করিবে না। কারণ, অপক আম্রাদি ফল হইতে রস নিষ্কাশিত করিলে যেমন রসাশ্রয় ফলের নাশ হয়, সেইরূপ দুর্নিহঁর সামদোষকে নিঃসারিত করিলে দোষােশ্রয় শরীরের নাশ छ्छेभा ९ांक ॥ २० এরূপ অবস্থায় জ্বরচিকিৎসাক্ত অগ্নিদীপ্তিকর। পাচন, স্নেহন এবং যথাবিধি স্বেদপ্রদান দ্বারা আমদোষ সকলের সংস্কার করিয়া যথাকলে রোগির বলানুসারে মৃদু মধ্য বা তীক্ষবমন বিরোচনাদি দ্বারা তাহাদিগকে দোষের সমীপবত্তী পথ দিয়া নিষ্কাশিত করিবে ॥ ৩০ কোন দোষের কোন পথ আসন্ন, তাহা কথিত হইতেছে। মুখ দ্বারা পীতদ্রব্য আমাশয় হইতে মিলকে আশু নিহঁরণ করে। ভ্ৰাণ-পীত দ্রব্য উৰ্দ্ধজক্ৰ হইতে এবং গুহ্যদ্বার প্রযুক্ত দ্রব্য পকাশয় হইতে মলকে নিষ্কাশিত করিয়া থাকে ৷৷ ৩১ উৎক্লিষ্ট অর্থাৎ বহির্গমনোন্মুখ, আমদোষ যদি অধ্য বা উৰ্দ্ধমাৰ্গ দ্বারা স্বয়ং প্রবৃত্ত क्षम, डांदी হইলে স্তম্ভন ঔষধদ্বারা তাহাদিগকে ধারণা করিবে না। cषाश्ङ् ७यदे अभिरक्षांश বিধৃত হইলে জরাদি রোগকারক হইয়া থাকে। অতএব প্ৰথমে 'হিতভোজী হইয়া স্বয়ংপ্রবৃত্ত দোষসকলকে উপেক্ষা করিবে, অর্থাৎ ধারক ঔষধ সেবন না করিয়া, কেবল সুপথ্য ভোজন করিবে। আমদোষ সকল যদি বিবন্ধু ও ঈষৎপ্রবৃত্ত হয়, তাহা হইলে পাচন,ঔষধদ্বারা তাহদের পরিপাক করিবে কিংবা নিহঁরণ করিবে ॥ ৩২৩৩ সংশোধন কাল। গ্রীষ্মকালে সঞ্চিত বায়ু শ্রাবণ মাসে, বর্ষাকালে ইঞ্চিত পিত্ত কাৰ্ত্তিক মাসে এবং হেমন্ত ও শিশির কালে সঞ্চিত কফ চৈত্রমাসে নিহঁরণ করিবে। দোষহরণ বিষয়ে ইহাই সাধারণ কাল ; অতএব এই সময়ে শোধন যুক্তিযুক্ত ॥ ৩৪ গ্ৰীষ্ম বর্ষা ও হেমন্ত কালে যথাক্রমে অতিশয় উষ্ণতা বৃষ্টি ও শীর্তন হাঁহী ৪াকে। সেই জন্য উহাদের সন্ধিকালে অর্থাৎ যে সময়ে শীত উষ্ণ ও বর্ষা সমভাবে থাকে,সেই সময়ে সংশোধন ঔষধ প্রয়োগ দ্বারা দুষ্ট বাতদি দোষের নিহঁরণ করিবে। প্রথম গ্ৰীষ্ম বর্ষা বা শীতকালে বামন বিরোচনাদি সংশোধন ঔষুধ প্রয়োগ যুক্তিযুক্ত নহে। কারণ, গ্ৰীষ্মকালে কালস্বভাৰে মানবগণ গ্লানিযুক্ত, প্রখর সূৰ্য্যকিরণে সন্তপ্ত, অতিরিক্ত পিপাসায় ব্যাকুল, অতি প্ৰািবলীন দােষ ও শিথিলশারীর হয়, সে সময়ে ঔষধ সমূহও উষ্ণ ও তীক্ষাবীৰ্য্য হয়, সুতরাং উক্তরূপ দেহে এইরূপ ঔষধ প্ৰযুক্ত হইলে তাহার অতিযোগ হইয়া থাকে। বর্ষাকালে অতিবৃষ্টিতে ভূমি ক্লিয় এবং অগ্নি ও শরীর দুৰ্বল হয়, ঔষধ সকল জলপ্লাবিত মূল হওয়ায় অল্পবীৰ্য্য ও ভুবাস্পসম্বন্ধে বিদগ্ধ হয়। সুতরাং তখন ঔষধের অযোগ হইয়া থাকে। শীতকালে অতিশয় শীত দ্বারা শরীর বাতবিষ্টন্ধ অতিথি ও গুরুদোষােক্রান্ত হয়, ঔষধ সমূহও উষ্ণস্বভাব হইলেও শৈত্যসংযোগে মন্দাবীৰ্য হওয়ায়