পাতা:অষ্টাঙ্গ হৃদয় - বাগ্‌ভট.pdf/১৪১

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


১৭ শ অঃ ] সূত্ৰস্থান Ե-S দূতাদি স্নেহ সংযুক্ত এবং সুরা শুক্ত জল বা দুগ্ধাদি দ্বারা সিদ্ধ করিয়া একটী ईंद्धि 55त्रिी न বঁশের নলের মধ্যে পুরিবে, তৎপরে পীড়িত গাত্র মেহাক্ত ও বস্ত্ৰাচ্ছাদিত করিয়া। তদুপরি পূৰ্ব্বোক্ত কাৰ্থ সহমত উষ্ণ থাকিতে থাকিতে সেচন করিবে ॥ ৭-৯ ৷৷ সৰ্ব্বাঙ্গগত বাতিরোগে কিংবা অর্শ ও মুত্ৰকৃস্থাদি পীড়ায় রোগী পুৰ্ব্বোক্ত সুখোঞ্চ দ্রব পুর্ণ কোন একটী কুণ্ডে বা টবে অবগাহন করিয়া থাকিবে ॥ ১০ م স্নেহপান ও মেহাভ্যঙ্গ দ্বারা অভ্যস্তরে ও বাহিরে নিন্ধ হইয়া পুৰ্বাহার জীর্ণ হইলে বায়ু শূন্য স্থানে বসিয়া স্বেদ গ্ৰহণ করিবে ॥ ১১ রোগের অবস্থা, রোগির অবস্থা এবং দেশ ঋতু ” ও ধাতু বুঝিয়া মধ্য উৎকৃষ্ট বা হীন স্বেদ প্রয়োগ করিবে। কাফাৰ্ত্ত ব্যক্তি রুক্ষ হইয়া অর্থাৎ কোন রূপ স্নেহ ব্যবহার না। ক্লরিয়া রুক্ষ স্কেন্দ্ৰ লইবে। প্রশ্নগ্নবাতে রুক্ষস্নিগ্ধ, স্তুেদ অর্থাৎ কোন মুঙ্গে রুক্ষ ও কোন অঙ্গে স্নিগ্ধ স্বেদ গ্ৰহণ করিবে । আমাশয়গত বাতে প্ৰথমে রুক্ষ স্বেদ পশ্চাৎ স্নিগ্ধ স্বেদ এবং পকাশয়গত বাতে প্ৰথমে মিথ্য স্বেদ পশ্চাৎ, রুক্ষ স্বেদ লইলে । স্থানানু • রোধে এইরূপ স্বেদ প্রয়োগ করিতে হয় ; কারণ আমাশয় কফের স্থান, বায়ু তথায় আগন্ধ, সেই জন্য প্ৰথমে রুক্ষস্বেদ দ্বারা কফের শাস্তি করিয়া পশ্চাৎ বায়ুশান্তির জন্য নির্থ স্বেদ দিতে হয়। আর পকাশয় বায়ুর স্থান, কফি তথায় আগন্তু, সেই জন্য বায়ুশাস্তির নিমিত্ত প্রথমে স্নিগ্ধ স্বেদ পশ্চাৎ কফশাস্তির জন্য রূক্ষ স্বেদ প্ৰদান করিতে হয়৷ ১২১৩ : বজফণদ্বয়ে অল্প স্বৈাদ দিবে। চক্ষুদ্ৰায় মুগ্ধ ওঁ হৃদয়ে, কেন্দ অতি অল্প মাত্র দিবে। অথবা একবাবুেই দিবে না । স্বেদ দিতেঁ দিতে যখন দেখিবে শীত ও বেদন অপগত হইয়াছে এবং হস্তপদাদি অঙ্গেৰ কোমলতা জুন্সিয়াছে, তখন বুঝিবে সম্যকু স্বেদা দেওয়া হইয়াছে। সম্যক্‌স্নিগ্ধ ব্যক্তিৰু অঙ্গ অল্প অল্প মর্দন করিয়া তাহাকে উষ্ণাঙ্গলে স্নান করাইবে। পরে স্নেহোক্ত বিধি পালন করাইবে ॥ ১৪ স্বেদাঁতিযোগ লক্ষণ। অধিক মাত্রায় স্বেদ প্রয়োগ করিলে পিত্তরক্তের প্রকোপ, পিপাসা, মূৰ্ছা, স্বরভেদ, অঙ্গাবসাদ, ভ্ৰম (অজ্ঞানতা), সন্ধিপীড়া, জ্বর, খাব ও রক্তবর্ণ মণ্ডল সমূহের উৎপত্তি"ও বমি এই সকল লক্ষণ প্ৰকাশ পায়। ইহাতে স্তম্ভন ঔষধ প্রয়োগ করিতে হয়। আবু বিব ক্ষুদ্র অগ্নি অতিসার, বমন ও মোহ পীড়িত ব্যক্তিদিগের পক্ষেও স্তম্ভন ঔষধ প্ৰশস্ত ৷৷ ১৫১৬ O . যে সকল দ্রব্য গুরু তীক্ষ্ম ও উষ্ণবীৰ্য্য, তাহারা, প্রায়ই স্বেদন (প্রায়, শব্দের অভিপ্ৰায় এই যে, ভয় শোকাদি গুরু না হইলেও স্বেদন হইয়া থাকে)। ইহার বিপরীতগুণান্বিত দ্রব্যসমূহ অর্থাৎ লঘু মৃদু ও শীতল, দ্রব্য স্তম্ভন। আর ক্ষুদ্ৰ স্থির সর স্নিগ্ধ রূক্ষ ও সুন্ম গুণবিশিষ্ট দ্রব্যসমূহ স্বেদন এবং মসৃণ রুক্ষ সুন্ম সর ও দ্রবগুণান্বিত দুৰ্য্যসকল স্তম্ভন ৷ ১৭ ংক্ষেপতঃ তিক্ত কষায় ও মধুর রস প্রায়ই স্তম্ভন হয়। অতুিম্বন্দজনিত রোগসমূহের নাশ হেতু রোগী যখন লব্ধবল হইবে, তখনই জানিবে য়াম্যক স্তম্ভিত হইয়াছে৷৷ ১৮ । অতিস্তম্ভিত লক্ষণ । দেহের স্তব্ধতা, ত্বক ও স্বায়ুর সঙ্কোচ, কম্প, হৃদয়বেদনা, বাক্যের অবসয়তা, হুজুগ্রহ এবং পাদ হস্ত ওষ্ঠ ও ত্বকের শুষ্ঠাববৰ্ণত এইগুলি অতিস্তম্ভিতের লক্ষণ ॥ ১৯ ○总