পাতা:অষ্টাঙ্গ হৃদয় - বাগ্‌ভট.pdf/১৬২

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


»Yo 叠 অষ্টাঙ্গাহৃদয়। [ ૨૭મ શs" প্ৰলিপ্ত করিবে । ( অথবা भागकल লিপ্ত বস্ত্ৰ কপালে বান্ধিয়া তাহার উপর চৰ্ম্মপষ্ট বসাইয়া বান্ধিয়া দিবে। ) তৎপরে ব্যাপির দোষানুসারে পাক তৈলাদি মেহ ঈষদুষ্ণ করিয়া মস্তকে (চৰ্ম্মপট্টের উপর দিয়া) কেশভূমির উপর দুই অঙ্গুক্তি যাবৎ নিষেচন করিবে। যতক্ষণ পৰ্যন্ত মুখ ও নাসিকার স্রাব না হয়, ততক্ষণ, মস্তকে তৈল ধারণ করিতে হইবে। বাত প্রধান রোগে দশ সহস্ৰ মাত্রা, পিত্তদুষ্টিতে অষ্টসহস্র মাত্রা, কফদুষ্টিতে ছয় সহস্ৰ মাত্রা এবং স্বাস্থ অবস্থায় এক সহস্ৰ মাত্রা স্নেহ ধারণ দরিতে হয়। শিরোবন্তি অপনীত করিয়া মুক্তস্নেহ ব্যক্তির স্কন্ধ গ্রীবাদি স্থান মর্দন করিবে । এই স্নেহবস্তি সেদিনের চরম সীমা এক সপ্তাহ ৷৷ ২৭-৩০ কর্ণপুরাণ। স্নেহ দ্বারা কর্ণপুত্ৰণ”করিয়া কৰ্ণমূল মর্দন করিবে। বেদনার লাঘব হইলে আর স্নেহ, ধারণ করিবে না । সুস্থ অবস্থায় একশত মাত্রা পৰ্য্যন্ত কৰ্ণে স্নেহ ধারণ করিবে ৷৷ ৩১ মাত্রার প্রমাণ । দক্ষিণ হস্তগ্রি দ্বারা জানু মণ্ডল অবৰ্ত্তন বরিতে যে সময় লাগে, তাহা যদি নিমিষেন্মেষ কালের সমান হয়, তবে সেই সময়কে মাত্রা কাহা যায় ॥ ৩২ মুৰ্দ্ধতৈল ব্যবহারে কেশের পতন শুক্লত। পিঙ্গলবৰ্ণতা পরিস্ফুটন ও মন্তকের বায়ুরোগ সমূহ নষ্ট হয় এবং ইন্দ্ৰিয়ের প্রসন্নত, স্বর হনু ও মন্তকের বল জন্মে৷ ৩৩ ৷৷ অষ্টাঙ্গাহৃদয়ে সুত্ৰস্থানে দ্বাধিকাংশ অধ্যায় সমাপ্ত । ত্ৰয়োবিংশ অধ্যায় । DBBD KES S DBHDBDSS DBEDDB DBDD BBBJSKK S BDDS BDBBBK বলিয়াছিলেন || ১ সর্বপ্ৰকার নেত্ররোগের চিকিৎসায় প্ৰথমে আশ্চ্যোতন ( পরিষেক ) হিতকর । কারণ ইহা দ্বারা নেত্রের বেদনা, সুচীবোিধবৎ ব্যথা, কg, ঘর্ষ, অশ্রুপাত, দাহ ও রাগ ( রক্তবর্ণত ) প্রশমিত হয়। বাতজনেত্র প্লোগে উষ্ণ, কফজ নেত্ৰে ঈষদুষ্ণ এবং রক্তপিত্তজ নেত্ৰে শীতল আশেচ্যাতন প্রয়োগ করিবে ॥ ২ ‘আঁশ্চ্যোতন প্রয়োগ বিধি। চিকিৎসক, বায়ুপ্রবাহরাহিত স্থানে, রোগকে বসাইয়া বাম হস্তদ্বারা তাহার নেত্র উল্মীলিত করিবে এবং দক্ষিণ হন্তে ঝিনুক বা কার্পসবৰ্ত্তি দ্বারা ঔষধ লইয়৷ তাহা দুই অঙ্গুলি অন্তর হইতে কনী নিকায় ( নেত্ৰতারায় ) দশ বা বার বিন্দু পরিষেক করিবে । তৎপরে কোমল বস্ত্ৰ দ্বারা নেত্র মুছিয়া, ঈষদুষ্ণ জল সিক্ত অপর বস্ত্ৰখণ্ড দ্বারা তাহাতে মৃদু স্বেদ দিবে। কফ বাতিজ নেত্ররোগে এই আশেচ্যাতন হিতকর । পিত্ত বা রক্ত জন্য নেত্ররোগে ইহ প্ৰযোজ্য নহে ॥ ৩৪ আশ্চ্যোতন অতি উষ্ণ বা তীক্ষ হইলে তদার। বেদন রক্তবর্ণতা ও দৃষ্টিনাশ ; অতি শীতল হইলে নিস্তোদ স্তব্ধতা ও শূল বেদন ; মাত্ৰাধিক হইলে কষয়বস্মতা (চক্ষুর পাতার রক্তবর্ণতা ), ঘর্ষ ( চক্ষুর পাতার পরস্পর সংশ্লেষ )'e নেত্ৰোক্ষ্মীলনে কৃঞ্ছতা ; অত্যন্ন মাত্ৰ প্ৰযুক্ত হইলে রোগের বৃদ্ধি ও সংরম্ভ এবং অপরিক্ৰত (মলযুক্ত ) হইলে নেত্রক্ষোভ হইয়া থাকে ॥ ৫৬