পাতা:আজ কাল পরশুর গল্প.pdf/১০৭

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


यां श्र • झ ७ ऊँी अ ब्र व् ए क्षे কৈলাস হয়তো জিজ্ঞেস করে, ছেলের কোন খপর পেলেন চকোক্তি মশায় ? চিঠিপত্র এল ?” অবিনাশ একটু দমে যায়! সহরবাসী রোজগেরে ছেলে তাকে ত্যাগ করেছে সত্য, চিঠিও লেখে না খবরও পাঠায় না, কিন্তু এই কি সে কথা তুলবার সময় ! সহানুভূতি জানানোর তো সময় আছে ? তবু ধৈৰ্য্য ধরে • অবিনাশ হয়তো বলে, “না, চিঠিপত তাঁর পাইনি। কি জানেন। দাদা, এ যুগটাই এ রকম, কারও কাণ্ডজ্ঞান নেই। নইলে ঘোষাল এমন কাণ্ডটা করতে পারে ? বামুন মানুষ তুই, গলায় তোর পৈতে আছে, সনদে বেলা তুই কিনা এক জেলেমগীর ঘরে—” কৈলাস হয়তো আবার বলে, “সেই যে পাত্রটির সন্ধান পেয়েছিলেন। খুকীর জন্যে, কতদূর এগোল প্ৰস্তাবটা ?” অবিনাশের হাতৰ্দাত সুড় সুড় করে, কৈলাসের গালে এক ঘা বসিয়ে দিতে, গায়ের কোথাও ৰক্ষামড়ে দিতে । নবীন সরকারের দাওয়ায় বসে হয়তো পাচজনে নানা কথা আলাপ করছে। সার্বজনীন দুর্গোৎসবের সেক্রেটারী কিসে সমস্ত টাকা খরচ করে ফেলল যে সাত টাকা এগাের আনা বিপিন মুদীর দোকানে ধার থেকে গেল, সকলে যখন এ সমস্যার কুলকিনারা পাচ্ছে না, কৈলাস হয়তো তখন আপন মনে বকে চলেছে, এ বছর বর্ষা কম হওয়ার ফলটা এ পৰ্য্যন্ত কি দাড়িয়াছে এবং ভবিষ্যতে কি দাড়াবে। গ্রামান্তরে আত্মীয়ের বাড়ী যাওয়ার সময় ভূষণের বিধবা শালীর গর্ভটা ঠিক ক’মাসের হয়েছিল, সকলে যখন এই তর্কে মাসগুল হয়ে আছে, কৈলাস হয়তো তখন কেবলই সকলকে মনে করিয়ে দেবার চেষ্টা করছে। ) ovО