পাতা:আজ কাল পরশুর গল্প.pdf/১১৪

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


可丐夺t可叶可°可分致 কৈলাস মাথা নেড়ে বলল, “তাকি হয় হে, আজ না পারলে কবে পারবে? পরশু। ধান বেচার টাকা পেয়েছ, তিন টাকা তিন পয়সা দিতে পারবে না ?” নকুড় বিড়বিড় করে কি বলতে লাগল। কারও কাণে গেল না। হঠাৎ কেদার বলল, “আপনিই বা এমন নাছোড়বন্দা কেন মশায় ? গরীব মানুষ এত করে বলছে, তিনটে টাকার তো মামলা, কদিন পরেই না হয় আদায় করবেন ?-আচ্ছা, এই নিন, আমি দিচ্ছি। আপনার তিনটাকা শোধ করে। তুমি তোমার সুবিধে মতো আমায় টাকটা দিও নকুড়, আর যদি নেহাৎ নাই দিতে পার—” নকুড় প্রথমটা থিতামত খেয়ে গিয়েছিল, কেদারকে মনিব্যাগ হতে টাকা বার করে কৈলাসের দিকে বড়িয়ে দিতে দেখে তাড়াতাড়ি ঠিক ম্যাজিকওয়ালার মতো কোমরের ভাজ হতে ঠিক তিন টাকা তিন পয়সা বার করে ফেলল। টাকাটা কৈলাসের হাতে দিয়ে লজার হাসি হেসে সবিনয়ে কেদারকে বলল, “না, বাবু মশায়, না । মোর থেকে মিটমাট হয়ে যাকগা-হাঙ্গামায় কাজ কি ?” তারপর কৈলাস বলল, ‘এবার ফিরবেন তো ? চলুন। এক সঙ্গেই যাই ।” কৈলাসের আরও কয়েকটি আদায় বাকী ছিল, কেদারও ঠিক করেছিল। কিছু তফাতের আরেকটি পাড়া আজ ঘুরে যাবে। নিজের নিজের কাজ বাতিল করে দুজনে একসঙ্গে ফিরে চলল। পাশাপাশি, নিঃশব্দে-অনেকটা বন্ধুর মতো। কৈলাস নিজে হতে কথা পড়বে না। বুঝে কেদার শেষে বলল, “আপনি বড় নিষ্ঠর।” O