পাতা:আজ কাল পরশুর গল্প.pdf/১২

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


আ জা কা লা প র শু। র গ প্ল ঘনশ্যামেরা ক’জন যখন গায়ে পড়ে উস্কে দিতে চাইছে সবাইকে, কি জানি কি ঘটবে। সুরমা জিজ্ঞেস করে, যাই হোক, বৌয়ের জন্য ভাত তো রেখেছি রামপদ ? “আজ্ঞে আপনারা ?” “আমাদের ব্যবস্থা আছে। বৌকে দু’টি খেতে দাওতো তুমি : চালাটা তোলোনি কেন ?” “তুলিব । তুলব।’ সুরমাই বলে কয়ে নিয়ে দু’টি খাওয়ার ছলে মুক্তাকে ভিতরে পাঠিয়ে দেয় রামপদ’র সঙ্গে। বাইরে যা ঘটুক, ওদের মধ্যে আগে একটু কথা আর বোঝা-পড়া হওয়া দরকার। গ্রামের এক জন কৰ্ম্ম শঙ্করের বাড়ীতে তাদের এবেলা নাওয়া-খাওয়ার ব্যবস্থা আছে। অনেক আগেই তাঁর এসে পড়া উচিত ছিল। গ্রামের অবস্থা সে ভালো জানে। তার সঙ্গে পরামর্শ করবারও দরকার হবে। ঝাপটা উঁচু করে তুলে দিতে আরেকটু আলো হয়। ঘরে। ‘নাইবে ?” রামপদ শুধোয়। “মোর জন্যে রোধে রেখেছে৷ ’ বলে মুক্ত । “শোলের ঝাল আর ভাত। আলুনি হৈছে কিন্তু ? এগার মাস আর অঘটনের ব্যবধান আর কিছুতে নেই, শুধু যেন আছে অতি-বেশী রয়ে’ রয়ে’ অল্প দু'টি কথা বলায়, নিজের নিজের অনেক রকম ভাবনার গাদা নিয়ে নিজে নিজে ফাঁপরে পড়লে যেমন হয়। চুপ করে থাকার বড় যন্ত্রণা। ভাবনাগুলি নড়তে নড়তে মুক্তার ከቓ