পাতা:আজ কাল পরশুর গল্প.pdf/১৪৬

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


°t百夺t可叶可@可名颈 মাত্র মাখন আর সুশীলা টের পায় এই বিকেল বেলাই সে মদ খেয়েছে । “আপনার স্ত্রীর সঙ্গে তো পরিচয় করিয়ে দেন নি ?” “এই যে দিচ্ছি। শুনছে, ইনি আমাদের মিঃ দাস।” পরনের বেনারসীর রঙের মতো সুশীলা সলজ্জা ভঙ্গীতে একটু হাসে, নববধূর মতো। বৌয়ের মতোই যে তাকে দেখাচ্ছে সুশীলার তাতে সন্দেহ ছিল না। দাস সাহেব আলাপী লোক, অল্প সময়ে আলাপ জমিয়ে ফেলে। যে চাপা ক্ষোভ সুরু হয়েছিল মাখনের মনে অল্পে অল্পে তলে তলে তা বাড়তে থাকে। স্ত্রীর সঙ্গে একজন যখন কোথাও যাচ্ছে, বিনা আহবানে কেউ এভাবে গাড়ী চড়াও হয়ে তাদের ঘাড়ে চাপে না-অন্তত যাদের সঙ্গে সাধারণ ভদ্রতা বজায় রাখবার কিছুমাত্র প্ৰয়োজনও মানুয়টা যদি বোধ করে। বার বার এই কথাটাই মাখনের মনে হতে থাকে যে অন্য কেউ হলে তার সঙ্গে এরকম ব্যবহার করার কথা দাস ভাবতেও পারত না । দাস বলে, “চা খেয়েছেন ?” সুশীলা বলে, “না।” ‘আসুন না। আমার ওখানে, চাটা খাওয়া যাবে।” মাখনের দিকে মুখ ফিরিয়ে দাস যোগ দেয়, সেই কনট্রাষ্ট্রের কথাটাও আপনার সঙ্গে আলোচনা করা যাবে। আপনাকে খুজিছিলাম।” মাখনের দু'চােখ জ্বল জ্বল করে ওঠে। সুশীলার নিঃশ্বাস আটকে যায়। আজ ক'দিন ধরে মাখন এই কনট্রাক্টটা বাগাবার চেষ্টা 8.