পাতা:আজ কাল পরশুর গল্প.pdf/৩৮

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


四廿西夺廿可叶颈 巴可分丽 জনতা ঘুরে দাড়ায়, একপা দু’পা এগিয়ে এসে হী করে তাকিয়ে থাকে। বাস তখনো ছাড়েনি। বাস থেকে নেমে এসেছে খাকি পোষাক পরা সুদেব, কোমরে চামড়ার চওড়া বেল্টটা তার কী চকচকে । লালপাগড়ী আঁটা একজন চা আনতে যায় সুবলের দোকান থেকে-চা এবং একটা কিসের যেন চ্যাপ্টা শিশি আর সোডার বোতল। ঘোষের হাত থেকে সিগারেট নিয়ে সুদেব ধরায়, টান মেরে ধোয়া ছাড়ে যেন ভেতরে কঁচা কয়লায় আগুন ধরেছে মানুষের ভিড় দেখার উত্তেজিত द्वg? । 'कि6मन्न लिफु ?' ‘কাপড় চায়।” হাঃ হাঃ । পরশু পচেটপুরে সার্চে গেছলাম নন্দ জানার বাড়ী। বাড়ীর সামনে যেতেই হাত জোড় করে বলল, কী করে ভেতরে যাবেন ? হুজুর, মেয়েরা সব ন্যাংটো । ওরা রসুই ঘরে যাক, সারা বাড়ী তল্লাস করুন। আমায় যেন বোকা পেয়েছে। রসুই ঘরে ফেরারী ছোড়াটাকে সরিয়ে সারা বাড়ী সার্চ করবে। আমি বললাম, বেশ। . তারপর সোজা রসুই ঘরের দরজা ভেঙ্গে একদম ভেতরে । আরো বাপরে বাপ, সে যেন লাখ শালিকের কিচিরমিচির সুরু হয়ে গেল মশায়। সব কটাই প্ৰায় বুড়ী, কিন্তু একটা যা ছিল মিঃ ঘোষ, কি বলব আপনাকে ! পাতলা একটা উড়নি। পরেছে, একদম জালের মতো, গায়ের রঙ দেখে তো আমি মিস্টার হাতিপুরের মানুষ হাতিপুরে ফিরে যায় ধীরে ধীরে। এদিকের / V)3