পাতা:আজ কাল পরশুর গল্প.pdf/৫৭

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


त्रू ऍी বুড়ী গাল-ভরা হাসি হাসে, “একরাত্তির শুয়েছি তোর দাদুর সাথে ? বিয়ের রাতে ভোস ভোসিয়ে পটল তুলল। না তোর দাদু ! সে এক কাণ্ড বটে ! ভোসভোসানি শুনে আমি তো ডরিয়ে গিয়ে কান্না ধরেছি। গলা ছেড়ে—হাউ-মাউ ক’রে দোর খুলে বাইরে গিয়ে। বাড়ী শুদ্ধ ছুটে এসে বলছে, কী কী, হয়েছে কী ? আর হবে কী, মোর কপাল ! বুড়োর ততখণে হয়ে গেছে গা ।” বুড়ী খলখলিয়ে হাসে । পুতি কিন্তু তার হাসে না। পুতির মুখে তার দ্বিধা সংশয় সন্দেহ, অবিশ্বাসের পাতলা মেঘ। খানিক ঘাড় বঁকিয়ে থেকে সে বলে, “তাও হবে বা । মস্ত ধেড়ে মেয়ে, ওকি ঠিক আছে!” বুড়ী গালে হাত দেয়।-“মর তুই বঁােদর। নিজে না পছন্দ করলি তুই বড় মেয়ে দেখে ?” "vo (No (egolia“বোকা, হাবা, বজাত! কুমারী মেয়ে নষ্ট হয় ? আমি নষ্ট হইছি ? বিয়ার রেতে সোয়ামী মোলো, দিন দিন যেন বাড়লো সবার মোকে নষ্ট করার চেষ্টা, নষ্ট হইছি। আমি ? কুমারী না হই তো তোর বাপের কিরে। মেয়া বাদ হয় সোয়াদ পেয়ে, কুমারী কি খারাপ হয়রে বেজিস্মার পুত ? মরণ তোর !—ষাট, ষাট, ! দুগগা, দুগগা ! তোর বালাই নিয়ে মরি। আমি।” ‘সত্যি বলছিস ?’ পুতি বলে তার মেঘকাটা মুখে আলো ফুটিয়ে । ‘না তো কি ?” কাজ আকাজের ফাঁকে ফাকে সবাই দ্যাখে নন্দ উবু হয়ে বুড়ীর সামনে বসে আছে তো বসেই আছে। কথার যেন শেষ নেই (9)