পাতা:আত্মকথা - সত্যেন্দ্রনাথ ঠাকুর.pdf/১০৭

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


আর যাহারা আমার ভাবনায় ভাবিত হন, আমার কঠিন পীড়া হইলে আকুল হইয়া পড়েন, তাহদের সংখ্যা করিতে পারি না। যতদিন বঁাচিয়া থাকিব, ততদিন তােহাৱা হৃদয়ে প্রতিষ্ঠিত থাকিবেন। তাঁহাদেরও নাম করিতে ইচ্ছা হয়। কিন্তু তাহাদের নামের তালিকা পাঠকের বিরক্তিকর হইবার সম্ভাবনা । তাহারা আমার আত্মীয় নহেন, কিন্তু আত্মীয় অপেক্ষাও আত্মীয় ; আমি তাহদের কাহারও কোন উপকার করি নাই, তথাপি আমার প্রতি তাহদের অসীম স্নেহ। তাঁহাদের কাৰ্য্যকলাপ দেখিয়া বুঝিয়াছি যে, মানব-প্ৰকৃতিতে এখনও মহত্ত্ব পরার্থপরতা প্ৰভৃতি শ্ৰেষ্ঠ গুণ-সকল বিদ্যমান আছে ; মানুষ এখনও নীচ হয় নাই ; মনুষ্যকুলে এখনও বহু ব্ৰাহ্মণ জন্মিতেছেন। তাহাদিগকে দেখিয়া বড় আনন্দিত, বড় উৎসাহিত হইতে হয়। বিধাতার সৃষ্টিকৌশল এতই সুন্দর যে, উচ্চনীচ মধ্যবিত্ত সকলেরই ভাগ্যে শ্ৰেষ্ঠ প্ৰকৃতির মানবের সংসৰ্গ ঘটিয়া থাকে। সুতরাং এরূপ সুখ ও আনন্দ কাহারো দুষ্পপ্ৰাপ্য নয়। শুনিয়াছি, বিদ্যাসাগর মহাশয় শেষ দশায় মানুষের স্বভাব চরিত্র সম্বন্ধে Misianthropic হইয়া পড়িয়াছিলেন, কেন হইয়াছিলেন তাহার জীবনচরিতে লেখে না । তাহার একখানা জীবনচরিত পড়িয়াছি। তাহাতে ওকথা দেখি নাই। উহা চণ্ডীচরণ বন্দ্যোপাধ্যায় কৃত জীবনচরিত। জীবনচরিতে ঐ রূপ কথাই আবশ্যক থাকা । কিন্তু আমাদের বাঙ্গালা সাহিত্যের দুরদৃষ্টক্রমে উহা প্ৰায়ই বাজে কথায় পরিপূর্ণ থাকে। আমি যাহাদের কাছে চিরঞ্চণী, তাহদের ২৪ জনের কথা আমাকে বলিতেই হইবে । যাহা দেয় কথা বলিলাম না, তাহারা সকলেই কিন্তু আমার হৃদয়ে প্ৰতিষ্ঠিত থাকিয়া আমাকে জগতের আনন্দময় কোষে রাখিয়া দিলেন । আমার আর্থিক অবস্থা যখন বড়ই শোচনীয়, এবং আমার ঋণের পরিমাণ চারি পাঁচ হাজার টাকা, তখন আমি হাইকোর্ট যাই । কিন্তু হাইকোর্ট আমার ভাল লাগিল না । সেখানকার হাওয়া প্রীতিকর নয় । উকিলোৱা শিক্ষিত, কিন্তু তাহাদের মধ্যে সদ্ভাব অপেক্ষা অসদ্ভাবই বেশী। তােহাৱা পরস্পরের কুৎসা করেন, এবং অনিষ্টের চেষ্টা করেন। বড় ঈৰ্ষাপরায়ণ । সেখানে যত টাকা। আপীল করিবার পারিশ্রমিক পাওয়া যায়, মোক্তার মহাশয়কে তাহার অনেক অধিক টাকার রসীদ লিখিয়া দিতে হয়। একদিন আমার কাছে আমার মুহুরী একটা খাস । আপীলের কাগজপত্ৰ আনিয়াছিল। কিরূপ অপদাৰ্থ অজুহাতে খাস আপীল দাখিল করা হয়, আমি জানিতাম। আমি দেখিতাম উকীল মহাশয়রা নিম্ন আদালতের বিচারে । দোষ-ত্ৰুটী হইয়া থাকিলে তাহার। প্ৰতিকার করাইবার জন্য যত না হউক, আদালত দ্বারা তিরস্তুত হইতে না হয় এমনি কৌশল করিয়া আপীলের দরখাস্ত রচনা করিয়া, গোটকতক টাকা হাতাইবার জন্য বেশীর ভাগ আপীলের দরখাস্ত দাখিল করেন। VSA) valve-vo