পাতা:আত্মকথা - সত্যেন্দ্রনাথ ঠাকুর.pdf/১৩

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


উপর রক্ষণাবেক্ষণের তার ছিল তঁদের কাৰ্য্যে তিনি সন্তুষ্ট ছিলেন না । কৰ্ত্তা নিজে তত্ত্বাবধান না করলে “যে রক্ষক সেই ভক্ষক হয়।” এ এক প্ৰকার ধর কথা । আমার” পিতা যদি তেমন মনোযোগ করে বিষয় কৰ্ম্ম দেখতেন তাহলে কোন ভাবনা ছিল না। কিন্তু 'তাঁর মন ছিল অন্য দিকে, নিতান্ত দায়ে পড়ে যতটুকু করতে হত’ তাই করতেন। কৰ্ত্তাদাদা তাকে লণ্ডন থেকে এই বিষয়ে এক পত্র লিখেছিলেন তার এই উদ্ধৃতাংশ থেকে দাদামশায়ের মনোভাব কতকটা জানা যায় :- “আমার সকল বিষয় সম্পত্তি নষ্ট হইয়া যায় নাই। ইহাই আমার আশ্চৰ্য্য বোধ হয়। তুমি পাদ্রিদের সহিত বাদ প্ৰতিবাদ করিতে ও সংবাদপত্রে লিখিতেই ব্যস্ত, গুরুতর বিষয় রক্ষা ও পরিদর্শন কাৰ্য্যে তুমি স্বয়ং যথোচিত মনোনিবেশ না করিয়া তাহা তোমার প্ৰিয়পাত্র আমলাদের হস্তে ফেলিয়া রাখা । ভারতবর্ষের উত্তাপ ও আবহাওয়া সহ্য করিবার আমার শক্তি নাই, যদি থাকিত আমি অবিলম্বে লণ্ডন পরিত্যাগ করিয়া তাহা নিজে পৰ্য্যবেক্ষণ করিতে যাইতাম।”* আমি ১৮৬২ খৃষ্টাব্দে ইংলণ্ডের Sussex জেলার অন্তৰ্গ"ত সমুদ্রের উপকূল Worthing নামক বন্দরে গিয়া কিছুদিন বাস করি। উহা আমার নিকট এক প্ৰকার তীর্থস্থানের ন্যায় মনে হয়েছিল, কেননা ঐখানে আমার পিতামহ দ্বারিকানাথ ঠাকুর তাঁর মৃত্যুর অব্যবহিত পূর্বে একমাস কাল যাপন করেন। ১৮৪৬ খৃষ্টাব্দের মাচ্চ মাসে তিনি এক উৎকট পীড়ায় আক্রান্ত হন, এ অবস্থায় তঁর চিকিৎসক মাটিনের পরামর্শে রোগ শান্তির জন্যে এই বন্দরে গিয়ে অবস্থিতি করেন । তিনি যে হোটেলে গিয়ে উঠেছিলেন আমি সেই হোটেলের মালিকের সঙ্গে দেখা করি ; সাহেবটির নিকট হতে দাদামশায়ের অনেক খবর শুনতে পাই । তার সংক্ষিপ্ত বিবরণ এই :- দ্বারিকানাথ ঠাকুরের সর্বশুদ্ধ ১৭ জন অনুচর ছিল, তার মধ্যে দুইজন এদেশীয় ভৃত্য। তা ছাড়া একজন সেক্রেটারী, একজন Interpreter, সঙ্গীত-ওস্তাদ জার্মাণ একজন, চিকিৎসক Dr. Martin এবং অপর একজন মিলে এই পঞ্চ সহচর সর্বদা কাছে থেকে তঁর আবশ্যকমত কাজকৰ্ম্ম তত্ত্বাবধানে নিযুক্ত ছিল । আমার ছোট From Dwarkaluath Tagore to Debendranath Tagore London 19th May 1846.

  • It is only a source of wonder to me that all my estates are not ruined. Yout time, I am sure, being more taken up in writing for the newspapers and in fighting with the missionaries than in watching over and protecting these important me" which you leave in the hands of your favourite Amlas-instead of attending to them yourself, most vigilantly.-If I was strong enough to bear the heat and climate of India, I should immediately have left London personally to superintend дес.

t