পাতা:আত্মকথা - সত্যেন্দ্রনাথ ঠাকুর.pdf/১৮৩

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


করাইয়া দিতেন। দুইবার অগ্রহায়ণ, পৌষ, তাহা হইলেই হুইল চারি মাস। আমি পাড়ার প্ৰেমচান্দ মহাশয়ের পাঠশালায় পড়িয়ছিলাম। পৌষপাকবৰ্ণ পালার ভিতর পড়িত, দুই বারই গুরুমহাশয়কে চাল, ডাল, নারিকেল, গুড়, তিল, তিলের ছাই, রাঙ্গা আলু, গোল আলু প্ৰভৃতি পৌষের সিধা দিতে হইয়াছিল, আমার বেশ মনে আছে। সিধার সঙ্গে এক এক বোঝা সুদৱী কাঠও দিতাম। শাস্ত্ৰমত তামাক চুরি করিয়া গুরুমহাশয়কে দেওয়া আমার অদৃষ্ট ঘটে নাই। বাড়ীর মধ্যে তামাক-খেক পুরুষ-সাধু চাকর । সে প্ৰত্যহ ১০ কড়ার তামাক পাইতি, তাহা হইতে চুরি করিয়া গুরুমহাশয়কে দেওয়া বড়ই কঠিন ও নিষ্ঠুর, কাৰ্য হইত। এই সকল বুঝিয়া সুকিয়াই বোধ করি ঐ রূপ কাৰ্য্যে গুরুমহাশয় আমাকে ব্ৰতী করেন নাই । , এবার যখন উল হইতে ফিরিয়া আসিলাম, তখনত আমি দ্বিগগজ পণ্ডিত । পাঠশালার সমবয়সী ছেলেদের, বানানে ঠিকাইয়া দিই, মানেতে ঠিকাইয়া দিই। তবে দুই একজন তিলি-জাতীয় ছাত্রের হাতে র লেখা আমাপেক্ষা ভাল হইয়াছিল। পূজার পর পিতৃদেব রাণাঘাটে চলিয়া গেলেন। তঁহার নিকট হইতে সাক্ষাৎ সম্বন্ধে শিক্ষা প্ৰাপ্তির একরূপ সমাধান হইল। কুসংসর্গে নষ্ট না হইয়া যাই, এরূপ শিক্ষা তিনি আমাকে দিয়াছিলেন । সদা সত্য কথা কহিবে, মিথ্যা কথা কহিবে না । এরূপ করিয়া তিনি আমাকে কখন শিক্ষা দেন নাই। শিক্ষা হয় দৃষ্টান্তে, কেবল উপদেশে নহে । তিনি আমাকে যে বিচিত্র শিক্ষা দিয়াছিলেন, সেই শিক্ষার গুণে আমি কুসংসৰ্গ প্ৰক্লফ হইয়াছিলাম। কুসংসর্গে আমাকে নষ্ট করিতে পারিত না । এই শিক্ষার কথা বহুদিন পরে, পিতার মুখে শুনিয়া এবং বুঝিয়া, আমি সাধারণীতে প্ৰবন্ধ লিখিয়া ছিলাম এবং পরে, “আলোচনা’ পুস্তকে সেই প্ৰবন্ধ সন্নিবিষ্ট করিয়াছি। দুই পঙক্তি তাহা হইতে উদ্ধৃত করিতেছি। "মনুষ্যজীবনের প্রথম শিক্ষা-অহঙ্কার, আত্মগৌরব, আপনার উপর শ্ৰদ্ধা, আপনার উপর বিশ্বাস, কুসংসর্গে লোক মন্দ হইয়া যায়, অর্থাৎ যাহার মনে নিয়মিত অহঙ্কার নাই, সেই উচ্ছিন্ন যায়।” পিতা হৃদয়ের মধ্যে এই আত্ম-গৌরবের অন্ধুর প্রবুদ্ধ করিয়াছিলেন, তাহাতেই চারি দিকে অনাচার অত্যাচারের বিষম দৃষ্টান্ত থাকিতেও, আমি দশ বৎসরের বালক, সেই সময় কুইতে সমস্ত किcभाद्र कान, अनए अ5ल छिलांभ । পূজার কিছুকাল পরেই কলেজের পরীক্ষার সময়। আমি একেবারে গ্রীষ্মের ছুটীর পর, যেদিন সিপাহীরা ইংরাজরাজের বিরুদ্ধে বিষম বিদ্রোহ ঘোষণা করে, ১৮৫৭ সালের ২রা জুন, সেই দিন আমি হুগলী কলিজিয়েট স্কুলের ষষ্ঠ শ্রেণীতে সেকেও নম্বর রীডারের ক্লাসে ভক্তি হইলাম । পর দশ বৎসরে, কিরূপে বিশ্ববিদ্যালয়ের বিরাট কলে, ঘুষ্টি ও পিষ্ট হইয়া একটি 总穆