পাতা:আত্মকথা - সত্যেন্দ্রনাথ ঠাকুর.pdf/১৯৭

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


কৃষ্ণকমল ভটাচাৰ্য্য মহাশয় । তিনিও ঐ তৃতীয় শ্রেণীতে আইন শিক্ষা করেন । অধ্যাপক বলিয়া সাহেব শিক্ষক উঠিয়া গেলে, তাহার অনুরোধে আমাদের রেজেক্টরী লাইতেন। কৃষ্ণকমলবাবু প্ৰথম নামটি ধরিয়াছেন কি, বঙ্কিমবাবু অমনি উঠিলেন,- তাহার কানের কাছে গিয়া চুপি চুপি বলিলেন “আমাকে উপস্থিত লিখে লাইবেন, মহাশয় ।” কৃষ্ণকমল বলিলেন, “আচ্ছা” । অমনি বঙ্কিমচন্দ্ৰ গোলদিঘির ধার দিয়া, ছাতা ধরাইয়া, সাটানে সমানে চলিয়া গেলেন । আমাদের কাহাক্স সহিত তখন বঙ্কিমবাবুর আলাপ হয় নাই। সেইটুকুই যা, কিছু কিন্তু । থাকুক “কিন্তু’, তখন বুঝিয়েছিলাম, এখনও বুঝিতেছি বঙ্কিমচন্দ্ৰ আমাদিগকে গৌরবান্বিত করিয়াছেন ; আমরা বাঙ্গালা লেখা-পড়া সাঙ্গ হইল ; অর্থাৎ কলেজের শিক্ষাও শেষ, বাঙ্গালা ভাষা ও সাহিত্যের শিক্ষাও শেষ- একত্রই হইল। আমার বঙ্গভাষা শিক্ষা করিবার কথা বলিব বলিয়া সঙ্কল্প করিয়াছিলাম । সেই সঙ্কল্প সিদ্ধ হইল ; আমিও নিজের কথা নিজে বলি বার অধৰ্ম্ম হইতে অব্যাহতি পাইলাম । এখন পিতৃদেবের জীবনীর কথা বলা যাইলেছে। কিন্তু অদৃষ্ট দোষে রাজনীতি সংঘটিত কোন কথা বলা ত চলে না । সুতরাং ছাড়িয়া ছুড়িয়া, কথা এড়াইয়া লিখিতে ठूद्देहऊgछ । উল হইতে চৌকি উঠাইয়া লইয়া, রাণাঘাটে গিয়া পিতৃদেব সেখানে অতি অল্পকালই ছিলেন । তাহাকে কিঞ্চিৎ “অপদস্থ” হইয়া পাণিঘাটায় যাইতে হয়। পাণিঘাটা নদীয়া জেলার দেবগ্রামের নিকট । তখন সেখানে চৌকি ছিল, এখন নাই । হঠাৎ এই পরিবর্তনের কারণ প্ৰকৃত-প্ৰস্তাবে রাজনীতি । তখন নীলকর বিষধরে বাঙ্গালা জর্জরিত। ইডেন, হর্শোল, গ্ৰাণ্ট, তখন ও নীলকরের বিরুদ্ধে অভুত্থান করেন নাই। নদীয়া, মুর্শিদাবাদ, চব্বিশ-পরগণা, যশোহর জেলার অনেক স্থলেই তখন নীলকর সর্বেসর্বা ; তাহদের দৌলত দ্যুৎপুৎ দেখে কে ? এই নীলক রের একজনের সঙ্গে, পিতৃদেবের দুই একটি কি কথা হয়। নীলকর আপনাকে অপমানিত মনে করেন । অতি অল্পকাল পরেই পিতৃদেব বদলি হইলেন । রাণাঘাট হইতে পাণিঘাটা, পাণিঘাটা হইতে পূৰ্ণিয়ার সদর । সেখানে তখন উর্দ চলিত ছিল । তাহার পাশাঁ পড়ার ফল দেখিল । পুণিষা হইতে, জাহানাবাদ । জাহানাবাদে তিনি ইংরাজী স্কুল স্থাপনা করেন। সে স্কুল এখনও আছে। আর ১৮৬১ সালে প্ৰসিদ্ধ হিন্দু হিতৈষী হরিশচন্দ্ৰ মুখোপাধ্যায়ের মৃত্যু হইলে, একটি শোকসভা আহবান করিয়া, তদীয় স্মরণার্থ চান্দা সংগ্রহের জন্য একটি সুন্দর সুললিত বক্তৃতা বাঙ্গালায় করেন। বহুদিন পরে * বাঙ্গালা সাহিত্যের সহিত, তাহার। আবার এই সংস্পর্শ । ইংরেজি ৫৭ হইতে ৬১ এই চারি বৎসরে, আমাদের পিতা-পুত্রে কেবল দুর্গোৎসব 戟凉