পাতা:আত্মকথা - সত্যেন্দ্রনাথ ঠাকুর.pdf/২৩১

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


• অঙ্গই তাহদের প্রতি এরূপ নিষ্ঠুর ব্যবহার করা হইতেছে। দণ্ডাৰ্থই হউক, কিম্বা প্রহর অল্পই হউক, যতক্ষণ পৰ্য্যন্ত সাক্ষীকে সাক্ষ্য দিতে হয়, ততক্ষণ পৰ্যন্ত তাহাকে কাঠগড়া বেষ্টিত একটি সংকীর্ণ স্থানে দণ্ডায়মান থাকিতে হয়। এরূপ অবস্থা কেবল YBYD DDS LTBZL LBD DDBB BBDD B gu DKuSYBBS DB BBD যে বিচারালয়ের সম্রাম-রক্ষার্থ দণ্ডায়মান অবস্থায় পক্ষা প্ৰদান করা কীৰ্ত্তব্য, কিন্তু আমাদের বিবেচনায় কেবল এরূপ কাল্পনিক সম্রামের জন্য কাহ’কেও কষ্ট প্ৰদান করা কোন প্ৰকাৱেই উচিত নহে। ) বিশেষত যে স্থানে কীৰ্ত্তিক বাগদী ও খোয়াজ নিকারী দাড়াইয়া সাক্ষা দিয়াছে, সেই স্থানে সেই অবস্থাতে ফুলের মুখুটি বিষ্ণু ঠাকুরের সন্তান হরলাল মুখোপাধ্যায়কে কিম্বা বিশাল ভূসম্পত্তিশালী যোগীন্দ্রনাথ রায়চৌধুরীকে সাক্ষ্য দিতে হইলে, তিনি যে আপনাকে হত্তমান বোধ করিতে পারিকেন, তদ্বিষয়ে কোন ংশয় নাই। এবং এই অপমান ভয়েই সন্ত্রান্ত সাক্ষীরা বিচারালয়ে উপস্থিত হইতে সঙ্কুচিত হয়েন । সত্য বটে, বিচারপতির সম্মুখে সকলেই সমান, কিন্তু তজন্য যে সবাবপ্রকার সাক্ষীকেই একই আসনে দণ্ডায়মান না করিলে, বিচারে দোষ স্পর্শ হইবে একথা যুক্তিযুক্ত নহে। বিশেষত কাৰ্য্যত রাজাজার দ্বারা এ বিষয়ে ইতারবিশেষ দেখা যাইতেছে। অনেকানেক ধনাঢ্য ভূস্বামীগণ সাক্ষ্য প্ৰদানার্থ বিচারালয়ে উপস্থিত হইতে নিষ্কৃতি লাভ করিয়াছেন, এবং সচরাচর দেখা যায় যে, যদি কোন ইউরোপীয়কে সাক্ষ্য দিতে হয়, তবে তিনি প্ৰায়ই বিচারপতির পার্থে সমাসীন হইয়া থাকেন । অতএব বিচারালয়ের সন্ত্রমরক্ষার্থ ভদ্র অভ্যুত্র সকল সাক্ষীকেই এক কাঠগড়ার মধ্যে দাড়াইয়া সাক্ষ্য দিতে হইবে এ তর্ক নিতান্ত দুকবল ; এরূপ প্ৰথা অবলম্বনে কোন উপকার নাই, বরং সন্ত্রান্ত ব্যক্তিদিগকে মানসিক ও দৈহিক কষ্ট দেওয়া হয় ও সময়ে সময়ে তঁহাদিগের সাক্ষ্যলাভের পথ অব*োধ করাও হয় । কিন্তু কেবল ইহাই নহে, সাক্ষীদিগের আরও দুৰ্গতি আছে। যে ব্যক্তি কর্তৃক সাক্ষী আহুত হন, তাহার পক্ষ হইতে জিজ্ঞাসাবাদ হইলে পর, পক্ষান্তরের উকীল তাহাকে প্রশ্ন করিতে আরম্ভ করেন । আদালতের ভাষায় এই প্রশ্নের নাম জেরার সওয়াল, এবং তাহা কখন কখন এতদ্রুপ জটিল ও সুদীর্ঘ ই ইয়া উঠে যে, সে জেরার জোর মিটান অতি সুকঠিন। প্ৰমাণ বিষয়িণী-ব্যবস্থাবিৎ পণ্ডিতেরা কাহেন যে, এক প্রশ্নের দ্বারা অনেক প্ৰকৃত বিষয়ের আবিষ্কার হইতে পারে, অতএব ইহা প্ৰয়োজনীয়। আমরাও বলি যে, যদি জেরার সওয়াল বিশুদ্ধ প্ৰণালীতে করা হয়, তবে অনেক গুপ্ত বিষয় প্ৰকাশ পাইতে পাৱে, কিন্তু উকীল মহাশয়েরা তদুদেশে প্ৰতি প্রশ্ন করেন না । সাক্ষীকে মিথ্যাবাদী করাই তাঁহাদের LTLLBDLBD KE YY LDS S SuDBDDBD LD YYCL DB LEYYS S BYz লণ্ডুলকালে উকীলাদিগের সংকোপ নয়নে দৃষ্টিপাত, ও পর্যন্তবাক্য প্রয়োগ এবং সময়ে రి