পাতা:আত্মকথা - সত্যেন্দ্রনাথ ঠাকুর.pdf/২৪০

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


রচনায়, হাস্যরসোদ্দীপক রচনার একটু পরিচয় দিব। সেই লেখার ইতিহাস বুৰাইবার জন্য তাহার গুণ-পুত্রের গুণেব পরিচয়ও একটু দিতে হইল। সাধারণীতে “চেনাচুর” নাম দিয়া, পাঠককে বালক সাজাইয়া মুঠা মুঠ বিস্ত্ৰণ বর্ষণ করিতাম। “সাধারণীর চেনাচুর” একটা উপমার সামগ্ৰী হইয়া উঠিয়াছিল। সাহিত্যে, সংবাদপত্রে,-সাধারণীর চেনাচুরের উল্লেখ থাকিত। “কিষণ দাস কি চেনা,-তের রূপেয়া, চার আনা-বড় লোক লেতেহে, বড় লোক খাতেহে৷” ইত্যাদি। কথা তখন লোকের মুখে মুখে শুনা যাইত। চেনাচুর ছেলেরাই খায় ; সাধারণীয় চেনাচুর বুড়ারাও ফোকলা দাতে চিবাইতে লাগিলেন ; এ দিকে কেশৰবাবুর সম্প্রদায়ের দুই চারি জন লেখক, বুদ্ধদেব যীশুখৃষ্ট শ্ৰীগৌরাঙ্গকে লইয়া বড়ই নাচাইতে আরম্ভ করিলেন । পিতা ধৰ্ম্মের বিকৃত ভাব লক্ষ্য করিয়া সাধারণীতে এক ‘ধরমচান্দকি চেনাচুর’ লিখিলেন । ইহাতে শাক্ত, বৈষ্ণব, ব্ৰাহ্ম, -এই সকল ধৰ্ম্মের বিকৃত ভাবের উপর তীব্ৰ কটাক্ষ আছে। এরূপ বিদ্রুপে কোন প্ৰকৃত বিশ্বাসীর হৃদয়ে কিছু মাত্র আঘাত লাগিবে না। এই বিশ্বাসে তখন পিতৃদেব উহা ছাপাইয়াছিলেন, এখনও আমি সেই বিশ্বাসেই সেই পদ্য পুনঃ প্ৰকাশিত করিলাম । श्रद्मभ-íांकि ८5नातून । মজামে ভোর পুর। হবুতরেকে চেনা মেরা হর তরোসে তৈয়ারি । দেখলে খ্যা লে চুনি চুনি গুণ বিচারি । য্যায়সা লেজৎ, ত্যায়সা গুণ, কিয়া কহো তারিফ { খানেসে দফা হোয়ে দুনিয়াকি তােকলিফ ॥ গুঙ্গী হোগা গাইয়া, অ্যাওর বয়রা পা গ৷ কাণ । লেংড়া যাগ কুঁদ কর্কে হোকে আগুয়ান । দেল খুব খোসা রহোগা, বুঢ়া হোগা জোয়ান । অন্ধেক আঁখো হোগা, বন্ধেকা সন্তান । দৌড় দৌড়কে আও সব আও রে বাঙ্গালি। পসািন্দ করলে মেরা চীজ, মেইনে উত্তারা ডালী । পহেলা নম্বসুমে দেখ। তন্ত্রশাহী চেনা ; আগর চে হুয়া হায় খোড়াসা পুৱান । তৌভি হায় খুব তাজা, আওৱ তেজী, ভক্তিসে যে খাওয়ে এসকো, শক্তি ওসপন্ন রাজী { Y to