পাতা:আত্মকথা - সত্যেন্দ্রনাথ ঠাকুর.pdf/২৬৬

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


হইয়াছিল । তদনুসারে দশম কি একাদশ বৎসর বয়সে আমার পিতাৱ বিবাহ হইল । DJYL YeS S YL0YSS DDDB BDBBBBBD DBBDLD YBDS DBDBBuBDB BBDBOBD সুবিজ্ঞ, সংস্কৃতজ্ঞ পণ্ডিত ও অধ্যাপক ছিলেন । কলিকাতা কঁাসিারিপাড়াতে তাহার টোল চতুষ্পাঠী ছিল। তঁহার জ্যেষ্ঠ পুত্ৰ সুবিখ্যাত সোমপ্রকাশ-সম্পাদক স্বারকানাথ বিদ্যাভূষণ মহাশয় বঙ্গ-সহিত্য-জগতে চিরদিনের জন্য প্ৰসিদ্ধি লাভ করিয়াছেন । আমার মাতামহ কবিবর ঈশ্বরচন্দ্ৰ গুপ্তের প্রতিষ্ঠিত ‘প্রভাকরা” নামক পত্রিকা সম্পাদনে তঁহার সাহায্য করিতেন । তিনি উত্তর কালে মহাত্মা ডেভিড হেয়ারের প্ৰতিষ্ঠিত বাংলা পাঠশালাতে পণ্ডিতী কৰ্ম লইয়াছিলেন, এবং আমার বড়মামা ংস্কৃত কলেজ হইতে উত্তীর্ণ হইয়া সেই কলেজেই কর্ম পাইলে, মাতামহ মহাশয় মিতব্যয়িতার গুণে কিঞ্চিৎ অর্থ সঞ্চয় করিয়া পৈতৃক ভিটা হইতে উঠিয়া স্বগ্রামেই একটি দোতলা পাকা বাড়ি নির্মাণ করিয়াছিলেন। ব্ৰাহ্মণ পণ্ডিতের পক্ষে ইহা এক নূতন ব্যাপার বলিয়া ঐ দোতলা বাড়ি প্ৰতিবেশীবর্গের অনেকের চক্ষের শূলস্বরূপ হইয়া বহুদিন ধরিয়া আমার মাতুল পরিবারের ঘোর অশাস্তির কারণ হইয়াছিল । তাহা দ্বিতীয় পরিচ্ছেদে বর্ণনা করিব । মাতামহ মহাশয়কে ‘আমার বেশ স্মরণ হয়। আমার ৯, ১০ বৎসরের সময় তিনি দারুণ উরুস্তম্ভ রোগে গীতাসু হন। তিনি উজ্জ্বল শ্যামবর্ণ, প্ৰসন্নমূতি, দীর্ঘাকৃতি পুরুষ ছিলেন । আমাকে “শিবরাম” বলিয়া ডাকিতেন । গৃহস্থালী বিষয়ে পরিপক্কতা তাহার প্রধান গুণ ছিল। আমার মাতুলালয়ে সম্বৎসরের চাল-ডাল প্ৰভৃতি গৃহস্থের প্রয়োজনীয় তাবৎ দ্রব্য এরূপ সঞ্চিত থাকিত যে, হঠাৎ কোন দিন দশ-পনেরোজন অতিথি উপস্থিত হইলে, তাহাদিগকে দুই ঘণ্টার মধ্যে পরিতোষ পূর্বক আহার করানো মাহামহীঠাকুরাণীর পক্ষে কিছুই ক্লেশকরা হইত না । মাতামহের মিতব্যয়িতা ও পাকা গৃহস্থালীর একটি দৃষ্টান্ত দিতেছি। আমার বড়মামা দ্বারকানাথ বিদ্যাভূষণ মহাশয়ের প্রথম পুত্ৰ উপেন্দ্রনাথের শৈশব কালে হক কলিকা হাতে লইয়া বেড়াইবার বাতিক ছিল । একটা হুক ও কলিকা না পাইলে কঁাদিয়া ঘর ফাটাইত, রাত্রে তাহার শয্যার পাশ্বে হুক কলিকা রাখিতে হইত, রাত্রি দুই প্ৰহরের সময় জাগিলে হুক হুকা করিয়া কঁাদিত । সুতরাং তাহার জন্য হুক ও কলিকা সর্বদাই রাখিতে হইত। হুকা তো বড় একটা ভাঙিতে পারিত না, কলিকাগুলি দিনে ২/৩ বার ভাঙিত । মাতামহ মহাশয় প্ৰতি শনিবার কলিকাতা হইতে গৃহে আসিতেন, আসিয়া রবিবাবু গৃহস্থালীর জিনিস গুছাইতেন। একবার আসিয়া স্বরবিবার কয়েক ঘণ্টা বসিয়া মাটি দিয়া এক ঝোড়া কলিকা গড়িয়া খড়ের আগুনে পোড়াইয়া রাখিয়া গেলেন; অভিপ্ৰায় এই, উপেন যত পারে কলিকা ভাঙক । তখন