পাতা:আত্মকথা - সত্যেন্দ্রনাথ ঠাকুর.pdf/৩৪৭

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


করিতে পারেন ? তাহা হইলে একবার জীবন মরণ পণ করিয়া দেখি ।” তিনি জিজ্ঞাসা করিলেন, “কি অনুগ্রহ ?” আমি বলিলাম, “আমি মনে করিতেছি, কলিকাতা হইতে পলাইয়া ভবানীপুরে থাকিব, বিশেষ প্রয়োজন ভিন্ন কলেঙ্গে আসিব না, একাগ্ৰ চিত্তে পাঠে মন দিব এবং পরীক্ষার জন্য প্ৰস্তুত হইব । কলেজে না আসার জন্য যদি আমার স্কলারশিপ না কাটেন, তাহা হইলেই এইৰূপ করিতে পারি ” তিনি বলিলেন, “তুমি কলেজে আসবে না, অথচ স্কলারশিপ কাটা হবে না, এটা কলেজের নিয়ম বিরুদ্ধ । ডিরেক্টরকে জিজ্ঞাসা না করে এরূপ করতে পাবি না । কি হয় তোমাকে দুদিন পরে বলব।” তৎপরে তিনি সমুদয় বিবরণ খুলিয়া লিখিয়া ডিরেক্টরের নিকট তইতে অনুমতি আনিলেন এবং আমাকে ছুটি দিলেন । আমি যোগেন ও মহালক্ষ্মীর নিকট বিদায় লইয়া আমার পুরাতন আশ্রয়দাতা ভবানীপুরের মহেশচন্দ্ৰ চৌধুরী মহাশয়ের ভবনে গিয়া উপস্থিত হইলাম । ভঁাহাদিগের নিকট আড়াই মাসের জন্য একটি ঘর চাহিলাম, যে ঘরে আমি একাকী থাকিব । আঁৰ্তাহারা দয়া কথ্রিয় তাহা করিয়া দিলেন । আমি সেই ঘর আশ্রয় করিয়া পাঠে একেবারে মগ্ন হইলাম। প্ৰাতে একবার সুনাঙ্গারের সময় বাহিরে যাইতাম ও রাত্রে আহারের সময় আধা ঘণ্টার জন্য যাইতাম । নতুবা দিনরাত্রি ঐ ঘরে যাপন করিতাম। এই আডাই মাসের মধ্যে শয্যাতে যাই নাই । সন্ধ্যার সময় চাকরেরা আলো জিৰ’লিয়া দিয়া যাইত, সেই আলো সমস্ত রাত্ৰি থাকিত। বড় ঘুম পাইলে দুই-চারি ঘণ্টা পুস্তক মাথায় দিয়া সেই ঘরেই ঘুমাইতাম। যত দূর স্মরণ হয়, পাঠের ঘণ্টা এইরূপ ভাগ করিয়া লইয়াছিলাম-আঙ্ক ছয় ঘণ্টা ( দুই ঘণ্টা; গ্ৰন্থ পড়া ও চারঘণ্টা অঙ্ক কন্যা ), ইতিহাস ছয়ঘণ্টা, ইংরাজী তিনঘণ্টা, সংস্কৃত একঘণ্টা, লজিক দুইঘণ্টাসৰ্ব্ব শুদ্ধ প্ৰায় আঠারো ঘণ্টা । এইরূপ পড়িতে-পাডিতে শরীর ও মন সময়-সময় বড় অবসন্ন হইয়া পড়িত। তখন পডা ফেলিয়া দিয়া বাহিরে সাইতে ইচ্ছা করিত । সেই সময়ে যোগেন ও মহালক্ষ্মীর মুখ মনে কঁরিয়া মনে দুরস্ক প্ৰতিজ্ঞা আসিত । ভাবিতম, যাহাদের প্রধান উৎসাহদাতা হইয়া এই সংগ্রামের মধ্যে ফেলিয়াছি, তাহদের সাহায্য করিতে না পারিলে কিরূপে নিশ্চিন্তু থাকিব ? প্ৰাণ থাক। আর 'যাক, একবার মরণ-বাচন চেষ্টা করিয়া দেখিতে হইবে। আমনি মনে প্রার্থনার উদয় হইত। *হে ঈশ্বর, এই সংগ্রামে আমার সহায় হও ।” তখন দিনের মধ্যে বহুবার প্রার্থনা করিতাম। লোকে যেমন শ্রমের মধ্যে বার-বার চা খাইয়া সবল হয়, আমি তেমনি বার-বার প্রার্থনা করিয়া সবল হইতাম । এইরূপ শ্ৰম করিতে করিতে যখন আড়াই মাস পরে পরীক্ষার সময় আসিল, তখন দেখিলাম একঘরে আড়াই মাস বন্ধ থাকিয়া ও নিচের ঘরে শুইঙ্গ-তইয়া z-S