পাতা:আত্মকথা - সত্যেন্দ্রনাথ ঠাকুর.pdf/৩৫১

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


তখন আমার হশ হইল। আমি উপেনকে জিজ্ঞাসা করিলাম, “কবে বিয়ে হৰে আর ততদিন একে কোথায় রাখা হবে ?” উপেন বলিলেন, “বিবাহ কাল রাত্রে হবে, আর ওঁকে সে পৰ্যন্ত এখানেই রাখা যাবে।” তখন আমি রাগিয়া উঠিলাম ; বলিলাম, "তা কখনই হবে না। এমন জানলে আমি এ কাজে থাকতাম না। এই পুরুষের দলে ও মাতালের মধ্যে একে রাখা হবে, তা হইতে পারে না।” এখানে বলা কর্তব্য, উপেন স্বরাপান করিতেন না, সুরা দূরে থাক, চুরুট পৰ্যন্ত কখনও থাইতে দেখি নাই। এ সকল বিষয়ে তাহার আশ্চর্য সংযম ছিল। কিন্তু তঁহার বন্ধুদের মধ্যে সুরাপায়ী ছিল। যত দূর স্মরণ হয়, সেই ভবনেরই আর একঘরে সুরাপান চলিতেছিল। তাহা দেখিয়া মেয়েটিকে সেখানে রাখা বিষয়ে আমার মনে ঘোর আপত্তি উঠিল। অবশেষে অনেক তর্ক-বিতর্কের পর উপেন আমাকে বলিলেন, “তবে তুমি যেখানে পার, এক রাত্রের জন্য একে রেখে এস।” আমি মুশকিল পডিলাম, সংস্কারক দলের কোনো পরিবারের সহিত আমার সেরূপ আলাপ ছিল না। মেয়েটিকে কোথায় লইয়া যাই ? কলিকাতার ব্ৰাহ্ম নেতাদিগের মধ্যে কিছু দিন পূর্বে গুরুচরণ মহলানবিশ মহাশয়ের সহিত পরিচয় হইয়াছিল। তাহাকে অত্যগ্রসর সংস্কারক দলের লোক বলিয়া জানিতাম । সেই রাত্রি দ্বিপ্রহরের সময় সেই কন্যাকে গাড়ি, করিয়া লইয়া মহলানবিশ মহাশয়ের পরিবারে রাখিতে গেলাম। তিনি অনুপূৰিক সমুদয় বিবরণ শুনিয়া কন্যাটিকে এক রাত্রির জন্য স্থান দিলেন। তৎপর দিন খিচুড়ী বিবাহ হইল। এরূপ শোনা গেল, মেয়েটি কায়স্থজাতীয়া, যদিও পরে জানা যায় যে তাহা নহে, তদপেক্ষা নিম্নজাতীয়া । কায়স্থদের কন্যা ইত। শুনিয়া উপেনের মনে হইল, তবে বিদ্যাসাগর মহাশয়ের মতে বিবাহ করিলে আইনসিদ্ধ হইতে পারে । সুতরাং পরদিন প্ৰাতেই বিদ্যাসাগপ মহাশয়ের মতে বিবাহের বন্দোবস্ত হইল। তদনুসারে পুরোহিত ও ঠাকুর অসিয়া একটা বিবাহ ক্রিয়া হইল। আবাবু এদিকে উপেন শহরের বড়-বড লোকদিগকে নিমন্ত্ৰণ করিয়া এক মহা সভাস আয়োজন করিয়াছিলেন । সেখানকার জন্য তো কিছু করা চাই । স্থির তহঁল, সেখামে একটু ঈশ্বরোপাসনা হইবে ও বীরকন্যা উভয়ে একটি লেখাপড়াতে স্বাক্ষর কৱিবেন। কিন্তু উপাসনা করিবে কে ? আমি অথবা উমেশ মুখুয্যে। কারণ, এই দুইটি ঐ যুবক দলের মধ্যে ব্ৰাহ্ম বলিয়া পরিচিত। আমাদের সঙ্গে অ্যর একজন ব্রাহ্ম ছিলেন, তিনি প্যারীমোহন চৌধুরী, যিনি পরে আচাৰ্য কেশবচন্দ্র সেন মহাশয়ের ‘প্রেরিত দলে’ প্ৰবেশ করিয়াছিলেন । এই তিনজন ব্রাহ্মের মধ্যে কেন যে আমার দ্বারা উপাসনা করানো সকলের মত হইয়াছিল, তাহা আমার স্মরণ নাই। যত দূরে মনে হয়, এ পরামর্শ বিবাহের কিঞ্চিৎ পূর্বে স্থির হয়, এবং আমি শেষ মুহূর্ত পর্যন্ত জানিতে পারি নাই।