পাতা:আত্মকথা - সত্যেন্দ্রনাথ ঠাকুর.pdf/৪০৫

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


উত্তর । কেন, ঈশ্বরের অবতার। খ্ৰীষ্টীয় বন্ধুটি বলিলেন, ঈশ্বরের অবতার কিরূপ ? কৃষ্ণাদির মতো ? রামকৃষ্ণ । হঁয়, সেইরূপ । ভগবানের অবতার অসংখ্য, যীশু ও এক অবতার। খ্ৰীষ্টীয় বন্ধু। আপনি অবতার বলতে কি বােঝেন ? রামকৃষ্ণ । সে কেমন তা জানো ? আমি শুনেছি, কোনো কোনো স্থানে সমুদ্রে জল জমে বরফ হয়। অনন্ত সমূদ্র পড়ে রয়েছে, এক জায়গাম কোনো বিশেষ কারণে খানিকটা জল জমে গেল ; ধরবার ছোবার মতো হল ! অবতার যেন কতকটা সেইরূপ । অনন্ত শক্তি জগতে ব্যাপ্ত আছেন, কোনো বিশেষ কারণে কোনো এক বিশেষ স্থানে খানিকটা ঐশী শক্তি মুর্তি ধারণ করলে, ধারবার ছোবার মতো হল। যীশু প্ৰভৃতি মহাজনদের যে কিছু শক্তি, সে ঐশী শক্তি, সুতরাং তঁরা ভগবানের অবতার । রামকৃষ্ণের সহিত মিশিয়া অামি ধর্মের সার্বভৌমিকতার ভাব বিশেষ রূপে উপলব্ধি করিয়াছি । ইহার পর ঝামকৃষ্ণের সহিত আমার মিত্ৰতা আরও ঘনীভূত হয় । এমন দিনও গিয়াছে, আমাকে অনেকদিন দেখিতে না পাইয়া তিনি ব্যাকুল হইয়া আমার সহিত সাক্ষাৎ কঝিতে আমার ভবনে আসিয়াছেন । বন্ধুপত্নী ব্ৰহ্মময়ী। এ সময়ের আধু একটি স্মরণীয় বিষয়, আমার বন্ধু দুৰ্গামোহন দাস মহাশয়ের প্রথমা পত্নী ব্ৰহ্মময়ীর ভালোবাসা, ও তঁহার মৃত্যুতে আমাদের ক্লেশ। দুৰ্গামোহনবাবু এ সময় ভবানীপুরের সন্নিকটে বাস করিতেন, সুতরাং ত্যাহা দ্ব ভবনে সর্বদা যাইতাম । ব্ৰহ্মময়ী আমার আকর্ষণের প্রধাণ কারণ ছিলেন, তিনি আমাকে বড় ভালোবাসিতেন। তঁহােৱ সেই সরল পবিত্রতা মাখা মুখখানি যেন স্থতিতে জাগিতেছে। প্ৰসন্নময়ীর ন্যায়, তাহারও সন্তানের ক্ষুধা যেন নিজ সম্ভান দিয়া মিটিত না । তিনিও কতকগুলি নিরাশ্রয় বালিকাকে নিজ ভবনে আশ্রয় দিয়া পালন করিতেছিলেন । ব্ৰহ্মময়ী আমার সর্ববিধ সদনুষ্ঠানের উৎসাহদায়িনী ছিলেন। তাহার একটি নিদর্শন মনে আছে। একবার ভবানীপুর ব্ৰাহ্মসমাজের অন্যতম সভ্য শিতিকণ্ঠ মল্লিক ও আমি পরামর্শ করিলাম যে, ভবানীপুরে একটি লাইব্রেরি ও পাঠাগার করিলে ভালো হয়। এই পরামর্শ করিয়া আমরা একদিন দুর্গামোহনবাবুর নিকট টাকা ভিক্ষা করিতে গেলাম। দুর্গামোহনবাবু অৰ্থ সাহায্য করিতে অস্বীকৃত হইলেন, তাহা লইয়া তাহার সঙ্গে অনেক বাদবিতও চলিল। আমি বলিলাম, “আপনার । DDD DDDB D BDB BBDB DBEED D DBS BB BBD BDD DBi i Sg