পাতা:আত্মকথা - সত্যেন্দ্রনাথ ঠাকুর.pdf/৬২

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


করতে বিলক্ষণ পটু ছিলেন। কেশববাবু রামমিত্রের সম্বন্ধে একটি গল্প বলতেন, সেটি হচ্ছে এই :- একদিন রামামিত্র ছেলেদের বটানিকাল গার্ডেনে বেড়াতে নিয়ে গেছেন। বাগানের মধ্যে যে একটা গাছের ঘর আছে সেইখানে তার দলবল নিয়ে তিনি যেমন প্ৰবেশ করেছেন-অমনি সেখানে উপস্থিত একটা রুক্ষ মেজারের ইংরাজ রেগে তাকে * gros 353:(7–“Who the devil are you ?” fef" w5)\5 z63 zCAR— "Professor Ram Chandra Mitra, Professor Presidency College-” আমরা সকলে একবার সিংহলে ব্যাড়াতে গিয়েছিলুম। ষ্টীমারে আমাদের সঙ্গে ছিলেন কেশববাবু আর কালিকমল গাঙ্গুলী বলে একটি আমুদে মজলিসী লোক,- ‘কোলাই কোমল গাঙ্গুলাই’ বলে আপনার পরিচয় দিতেন। সমুদ্রের উপরে রামমিত্রের গল্প আমাদের এক প্ৰধান খোৱাক ছিল । সে সব কথা শুনে হাসতে হাসতে আমাদের নাড়ী ছিড়ে যেত । ‘কোলাই কোমল’ শেষে আমাদের ভারি মুস্কিলে ফেলেছিলেন। দেশে ফেরবার সময় তিনি কি একটা কাজের ছুতো করে বোটে উঠে ডাঙ্গায় নেমে গেলেন । এই আসছি বলে কোথায় যে অন্তধান হলেন তার আর কোন সন্ধান পাওয়া গেল না । তাকে ছেড়ে ষ্টীমার চলে গেল। তার দু এক-সপ্তাহ পরে তবে কলকাতায় আবার ষ্ঠার দেখা পাই । বিলাত যাত্ৰা প্রেসিডেন্স কলেজ থেকে আমার বিলাত মাত্ৰা । আমি কখনও স্বপ্নেও যা ভাবি নাই আমার ভাগ্যে তাই ঘটল। আমাদের জীবনে পদে পদে দেখা যায়-দৈবের কি বিচিত্র গতি!! এক একটা অদৃষ্টপূর্ব আকস্মিক ঘটনা এসে কত সময় আমাদের জীবনস্রোতকে কোন এক অজ্ঞাত নূতন পথে যেন বলপূর্বক টেনে নিয়ে যায়—যার পুর্বাভাস কিছুই পাওয়া যায় নাই। আমার জীবনে এ কথা সপ্ৰমাণ দেখতে পাই। আমি বাল্যকালে একভাবে শিক্ষিত হচ্ছিলুম, আমার জীবন একভাবে গঠিত ও নিয়মিত হচ্ছিল, দৈব ঘটনায় কোন এক বন্ধু-মিলনে সে সমস্তই উল্টে গেল, আমার জীবন-প্ৰবাহ অন্য দিকে বিবৰ্ত্তিত হ’ল। সেই বন্ধুর মন্ত্রণায় আমার বিদেশীযাত্রা, ইংলণ্ড গিয়ে সিবিল সার্বিসের পরীক্ষা দেওয়া ইত্যাদি কারণে আমার পূর্ব-নির্দিষ্ট জীবনের সম্পূর্ণ পরিবর্তন ঘটল । (!) \ბ