পাতা:আত্মচরিত (শিবনাথ শাস্ত্রী).pdf/১৬৪

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


Y'R শিবনাথ শাস্ত্রীর আত্মচারিত তিনি যখন ইংলণ্ড যাত্ৰা করিলেন, তখন একদিন আমাদের অনেককে একত্ৰ করিয়া অনেক কথা বলিয়াছিলেন, তিনি বিদেশে যাইতেছেন, কি হয় BBD DS DD DBBDBB DDu DBBB DDB DBB DDDD DDDDB সম্ভাবনা সেসকল বিষয়ে কিছু কিছু বলিয়াছিলেন। তন্মধ্যে একটা কথা মনে আছে। তিনি মহাপুরুষের মতের উল্লেখ করিয়া বলেন, যে, fift মহাপুরুষদিগকে মনে করেন যেন চশমা,-অর্থাৎ চশমা যেমন চকুকে BDBDDBD DBDBDB DS DBD DDS DBDB BBBD DBDS BDB DBDS পুরুষগণ ঈশ্বর ও মানবের মধ্যে দাড়াইয়া ঈশ্বরদর্শনের ব্যাঘাত করেন না, কিন্তু ঈশ্বরদর্শনের সহায়তা করেন। ৭ অথবা মহাপুরুষেরা যেন DDDDBS BDD BDD DBDBBD DBDS TBDDD DBBB iBBB করিয়া দেয়, তৎপরে আর তার কাজ থাকে না, তেমনি মহাপুরুষগণ ঈশ্বর-চরণে মানবকে উপনীত করিয়া দেন, নিজেরা আর মধ্যে পাকেন না। আমার মনে হইতেছে আমি তখন তঁাহাকে বলিয়াছিলাম, “মহাপুরুষেরা চশমা তাহা ঠিক, কিন্তু কাহাকেও যদি বারবার বলা যায়, “দেখ, দেখ, ঐ তোমার চোখে চশনা, ঐ তোমার চোখে চশমা।” তাহা চাইলে দ্রষ্টব্য পদার্থ হইতে তাহার দৃষ্টিকে তুলিয়া, সে দৃষ্টিকে চশমার উপরেই ফেলিয়া দেওয়া হয়। তেমনি মঙ্গাপুরুষগণ ঈশ্বর দর্শনের সহায় ভইলোও, “ঐ মহাপুরুষ ঐ মহাপুরুষ” করিয়া যদি তাঙ্গাদের প্রতিই দৃষ্টিকে অধিক আকৃষ্ট করা হয়, তাহা হইলে ঈশ্বরকে পশ্চাতে ফেলা হয়।” যাহা হউক, তাহার বিচ্ছেদে আমি বড়ই ক্লেশ পাইয়াছিলাম, এবং তৎকালের ভাব প্ৰকাশ করিয়া একটী কবিতা লিখিয়াছিলাম ; সেটা তাহার পীর উক্তিতে। তাহা বোধ হয় অবলাবান্ধবে কি অন্য কোনও পত্রিকাতে প্ৰকাশিত হইয়াছিল। আমি কেশববাবুর নিকট অনেক শিখিয়াছি। কি ভাবে ঈশ্বরের কাজ করিতে হয়, তাহা তাহাকে