পাতা:আত্মচরিত (শিবনাথ শাস্ত্রী).pdf/১৭০

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


Ay শিবনাথ শান্ত্রিীর আত্মচারিত সারদানাথ হালদার, শ্ৰীনাথ দত্ত, কালীপ্ৰসন্ন চক্ৰবৰ্ত্তী প্ৰভৃতি সঙ্গদীক্ষিত ব্ৰাহ্মবন্ধুগণ বাস করিতেছিলেন, সেই বাসাতে র্তাহাদের সঙ্গে গিয়া বাস করিয়া বি-এ পরীক্ষার জন্য প্ৰস্তুত হইতে থাকি। এই সময়ের আর দুইটী ঘটনা উল্লেখযোগ্য আছে। প্ৰথমঅবলাবান্ধব-সম্পাদক ব্ৰাহ্মসমাজে সুপরিচিত দ্বারকানাথ গঙ্গোপাধ্যায়ের BD DB S BDBBD uu BB DD DDB SDDDSDDDS BBD পত্রিকা বাহির হয়। তখন ঢাকা সমাজ-সংস্কারের প্রধান ক্ষেত্ৰ চেষ্টয়া উঠিয়াছিল। এই সময়েই “মহাপাপ বাল্যবিবাহ” নামে এক পুস্তিকা ঢাকা হইতে বাহির হয়। তাহাতে সেখানকার যুবকদলের উপরে আমাদের অতিশয় শ্রদ্ধা জন্মে। এই রঙ্গভূমিতে অবলাবান্ধব দেখা দিল। আমরা ভাবিলাম, এ কে বঙ্গদেশের এক কোণ হইতে নারীকুলের হিতৈষী হইয়া দেখা দিল ? অবল-বান্ধবের সম্পাদককে তখন চিনিতাম না, কিন্তু তঁাহার তাজা তাজা কথা প্ৰাণ হইতে আসিতেছে বোধ হইতে ও আমাদের বড় ভাল লাগিতা। ক্রমে ঢাকার প্রসিদ্ধ ডেপুটী ম্যাজিষ্ট্রেট অভয়চরণ দাসের পুত্ৰ প্ৰাণকুমার দাস একবার কলিকাতায় আসিয়া আমাকে ও অপরাপর কয়েকজনকে তাহার লেখক-শ্রেণীভুক্ত করিয়া গেলেন। আমার যতদূর স্মরণ হয় আমি রাধারাণীকেও বলিয়া কতিয়া লেখিকা করিয়াছিলাম। 'অবলাবান্ধবে আমার গদ্যপদ্যাত্মক প্ৰবন্ধ মধ্যে মধ্যে প্ৰকাশিত হইত। দুঃখের বিষয় উক্ত পত্রিকার একখানি ফাইল খুজিয়া পাই নাই। অবলাবান্ধবের সহিত যোগ রহিয়াছে, সেই সময়ে একদিন কলেজে পড়িতেছি, এমন সময়ে উমেশচন্দ্ৰ মুখোপাধ্যায় আসিয়া আমাকে বলিল, “ওরে ভাই, অবলা-বান্ধবের এডিটার কলিকাতায় এসেছে, আমাদের সঙ্গে দেখা করতে এসেছে।” অমনি আমি আমাদের “হিরোকে”