পাতা:আত্মচরিত (শিবনাথ শাস্ত্রী).pdf/২৭

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


@叫可°f死研 R 6 এক ভূৰ্জপত্রে দুর্গার স্তব লিখিতে লাগিল, তখন আর আমাকে সে ঘরে রাখিতে পারিল না, আমি মেয়েটির কোলে মাথা লুকাইয়৷ কঁাদিতে লাগিলাম। আমাকে বাহিরে লইয়া গেল। কিয়ৎক্ষণ পরে মা আসিী। আমাকে কোলে লইলেন, ও নানা মিষ্ট সম্বোধনে থামাইবার চেষ্টা করিতে লাগিলেন। আমার বয়স তখন চারি পাঁচ বৎসরের অধিক হইবে না। আমার মায়ের উনিশ বৎসর বয়সের সময় আমি হইয়াছি ; সুতরাং মায়ের বয়স তখন ২৩ কি ২৪ বৎসরের অধিক নয়। ২৪ বৎসরের বালিকার ঐ মানতের কথা যখন স্মরণ করি, তখন বিস্ময়াবিষ্ট হইয়া মনে ভাবি, এই ধৰ্ম্মনিষ্ঠা আমার চরিত্রে কৈ ? BD DY DBDBB DBB DBB BD D DD TBB S DD দেখিতে অতি সুশ্ৰী হইয়াছিল বলিয়া বাবা কবিত্ব করিয়া তাহার নাম "উন্মাদিনী রাখিলেন। উন্মাদিনী বসিতে সমর্থ হইলেই আমার খেলিবার সঙ্গিনী হইল। দুই ভাই বোনে বসিয়া খেলিতাম। মা পাড়ার ছেলেদের সঙ্গে আমার মেশা পছন্দ করিতেন না। তখন পাড়ার ছেলেরা যে কি খারাপ কথা বলিত ও খারাপ কাজ করিত তাহী স্মরণ করিলে লজ্জা হয়। গালাগালি বৈ তাহদের মুখে ভাল কথা ছিল না। অধিকাংশ ছেলে রাগিলেই তাদের মাকে “পাট” বলিত । আমাদের প্রতিবেশী এক জাতি জেঠার ছেলে-মেয়েরা মাকে এত পাটী পাটী বলিত যে তাদের একটি বোনের “মা” “মা” বলার পরিবর্ভে পাটী পাটী বলিয়াই কথা ফুটিল। সে মাকে না দেখিতে “পাইলেও, “পাটী”, ও “পাটী” করিয়া কঁাদিত। সেই কুসঙ্গের মধ্যে আমার মা যে আমাদিগকে কিরূপে বঁাচাইবার চেষ্টা করিতেন, তাহা এখন ভাবিলে আশ্চৰ্য্যান্বিত হইতে হয়। একবার পাড়ার এক ছেলের মুখে "তার মার প্রতি বাপান্ত গালি শুনিয়া আসিয়া আমি নিজের মাকে