পাতা:আত্মচরিত (সিগনেট প্রেস) - শিবনাথ শাস্ত্রী.pdf/১৪৪

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


একাদশ পরিচ্ছেদ ৷ ১৮৭৮ জানায়ারী-মে কেশবচন্দ্রের সঙ্গে বিচ্ছেদ কেশবচন্দ্রের কন্যাদান। মঙ্গের হইতে কলিকাতায় ফিরিয়া আসিয়া শানিলাম কেশববাবা তাঁহার পৈতৃক ভবনের অংশ বিক্রয় করিয়া সেই অর্থে মিস পিগটের স্কুলের বাড়ি ক্ৰয় করিয়া তাহার নাম ‘কমল কুটির” রাখিলেন, এবং সেখানে কুচবিহারপক্ষীয় ঘটকদিগকে তাঁহার জ্যোিতষ্ঠা কন্যা দেখানো হইল। জীবনের সত্যন্ত্রত। অপরদিকে এই সময়েই কয়েকজন উৎসাহী ব্ৰাহম মিলিত হইয়া আর-এক কায্যের সত্রপাত করিলেন। তাঁহারা একটি ঘননিবিষ্ট দল সন্টি করিবার জন্য উদ্যোগী হইলেন। এইরপ স্থির হইল, তাঁহারা কয়েকটি মািল সত্যকে জীবনের ব্ৰতরাপে অবলম্বন করিবেন, এবং তাহাতে স্বাক্ষর করিয়া একটি ঘননিবিদ্ট দলে বন্ধ হইবেন। তন্মধ্যে কয়েকটি ব্ৰত প্রধান রাপে উল্লেখযোগ্য। প্রথম, তাঁহারা একমাত্র ঈশবিরের উপাসনা করিবেন। দ্বিতীয়, তাঁহারা গবৰ্ণমেণ্টের চাকুরি করবেন না। তৃতীয়, পরিষের ২১ বৎসর ও কন্যার ১৬ বৎসর পণ্য হইবার পাবে বিবাহ দিবেন। না, বা সেরাপ বিবাহে পৌরোহিত্য করবেন না। চতুর্থ, জাতিভেদ রক্ষা করিবেন না, ইত্যাদি। আমাকে আমন্ত্রণ করাতে আমি ঐ দলে প্রবেশ করিতে প্ৰস্তুত হইলাম। একদিন বিশেষ উপাসনার দিন স্থির হইল। ঐ দিন বিশেষ উপাসনানন্তর প্রতিজ্ঞাপত্রে স্বাক্ষর করিয়া, আগন জবালিয়া, ঈশবিরের নাম লইতে-লাইতে তাহা প্ৰদক্ষিণ পািবক, আমরা ঐ অপ্ৰিনতে আমাদের নিজ-নিজ নাম অপাণ পািব্যক, প্ৰাথ নানান্তর প্রতিজ্ঞাপত্ৰ পােনরায় পাঠ করিয়া সবাক্ষর করিলাম। সখের বিষয় যে, ইহার পর আমি ও ঐ দলের আর একজন গবৰ্ণমেণ্টের চাকুরি পরিত্যাগ করি, এবং সেই সকল প্ৰতিজ্ঞা চিরদিন পালন করিয়া আসিতেছি। বিপিনচন্দ্র পাল, সন্দরীমোহন দাস, আনন্দচন্দ্র মিত্র প্রভৃতি ব্ৰাহমবন্ধগণ ঐ দলে ছিলেন। যত দর স্মরণ হয়, ময়মনসিংহের শরচ্চন্দ্র রায়ও ঐ দিন উপস্থিত ছিলেন। যখন ইহারা ভগবানের নাম কীন্তন করিতে-করিতে আগমনের চারিদিকে ঘরিয়া আসিতে লাগিলেন, তখন এক আশ্চয বল ও আশ্চর্য প্রতিজ্ঞা আমার মনে জাগিতে লাগিল। কিন্তু অলপদিনের মধ্যে কুচবিহার বিবাহের আন্দোলন উঠিয়া, সেই ঝড়ে আমাদের ক্ষমাদ্র দলটি বিপর্যস্ত হইয়া পড়িল। সে আন্দোলনে ইহারা সকলেই মহোৎসাহে কায করিয়াছিলেন। এই সময় হইতে আমার গবৰ্ণমেণ্টের চাকুরী ত্যাগ করিয়া ব্রাহমাধ্যম প্রচারে ও ব্রাহামসমাজের সেবাতে আপনাকে দিবার প্রবত্তি অতিশয় প্রবল হইল। কিন্তু সে চাকুরী ত্যাগ করিয়া অন্য চাকুরী লইবার ইচ্ছা আমার ছিল না। এ বিষয়ে আমি বন্ধবের আনন্দমোহন বস মহাশয়কে পরামর্শদাতা রাপে বরণ করিয়াছিলাম। আমার SSS