পাতা:আত্মচরিত (সিগনেট প্রেস) - শিবনাথ শাস্ত্রী.pdf/১৯০

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


বসিয়া থাকিতে হয়। সেরাপেই বা কতদিন বসিয়া থাকি ? অবশেষে রামকৃফিয়ার নিকট লোক পাঠাইলাম, আমাকে পালকি ও বেহােরা দাও, আমি রাজমহেন্দী যাই। ত্ৰিশ মাইল পথ পালকিতে যাওয়া বড় কম ব্যয়সাধ্য নয়; ১- সেই জন্যই বোধ হয়। রামকৃফিয়া তাহাতে কৰ্ণপাত করিলেন না। অবশেষে ব্ৰাহমণতনয় ভীম রাওকে বলিলাম, “ওহে, তুমি আমার মালপত্রগলা লইয়া - যাইবার জন্য দইজন কুলি ঠিক কর, আমি হটিয়া রাজমহেন্দ্রী যাই। বোটের জন্য তিন-চারিদিন বসিয়া থাকা ভালো affect I" B BBBD DBDD Duuu BD BDDBBS SGDBDS DBDBD D DBuu যাইবেন! তা হইতেই পারে না; আসন, আমার বাড়িতে আসন, এ কয়দিন আমার বাড়িতে থাকুন।” আমি বলিলাম, “না, ভীম রাও, তা হবে না; তুমি ব্রাহণ, দেখলে তো, কমিটির জলে সন্নান করাতে কি আন্দোলন উপস্থিত! তোমাকে বিপদে পড়তে হবে। বিশেষত তুমি গরীব, সামান্য কেরানীগিরি কর, কোনো রপে একটি ছোট বাড়ি ভাড়া করে আছ, তার ভিতর আমাকে কোথায় নে যাবে?” ভীম রাও কোনো রাপেই শনিলেন না। বলিলেন, “আসন না, সেই ঘরেই সকলে থাকব। আমাকে যা সাজা দিতে চায় দেবে, আমি তা গ্রাহ্য করি না।” এই বলিয়া আমার আপত্তির প্রতি BBB DD DBBBDD DD DBBD BDBD BD DBDBD BDDDBDS BBB DBDB তাঁহার ভবনে উপস্থিত করিলেন, এবং তথায় লইয়া তাঁহার মাতা ভগিনী ও সস্ত্রীর সাহিত একঘরে সন্থাপন করিলেন। আমি বাহিরের দাবাতে মাদর পাতিয়া বৈঠক করিলাম। তৎপরদিন প্রাতে ভীম রাও বলিলেন যে, সম্পমাখের রাস্তার অপর পাশেব একটা ছাপাখানা আছে, সন্ধ্যার পর তাহার আপিসে কেউ থাকে না; তাঁহাদিগকে বলিয়া সায়ংকালের জন্য আপিসটা চাহিয়া লইবেন, সেখানে লোকে আসিয়া আমার সঙ্গে সাক্ষাৎ করিবে; কারণ অনেকে দেখা করিবার জন্য ব্যগ্র। আমি বলিলাম, “আচ্ছা! বেশ, ঠিক কর।” তদনসারে ভীম রাও ছাপাখানার কাতাদের নিকট গিয়া দাই-তিন দিন সন্ধ্যাকালের জন্য তাঁহাদের আপিস ঘরটা চাহিলেন। তাঁহারা দিতে সম্বীকৃত হইলেন। তদনসারে শহরের শিক্ষিত ব্যক্তিদিগকে সংবাদ দেওয়া হইল। কিন্তু আমরা সন্ধ্যার সময় বসিতে গিয়া দেখি, প্রেসওয়ালারা প্রেস বাড়িতে তালা দিয়া উধাও হইয়াছেন। পরে শানিলাম, তাঁহারা প্রাতে স্বীকৃত হইবার পর শহরের ব্রাহণের সদলে তাঁহাদের উপর। পড়িয়া তাঁহাদিগকে নিবত্ত করিয়াছেন। শনিয়া অনেক হাসিলাম, “বাপ রে বাপা! বৈদ্যের জলে সন্নান করার এত সাজা!” কোকানদা স্কুল গহে বস্তৃতা। পরদিন প্রাতে ভীম রাওকে স্থানীয় ইংরাজী স্কুল কমিটির সভাপতি ম্যাজিসেন্ট্রট সাহেবের নিকট প্রেরণ করলাম। বলিলাম, “জেনে এস, তিনি স্কুল গহে আমাকে বস্তৃতা করিতে দিবেন। কি না, এবং তিনি নিজে সভাপতি হইবেন কি না।” বক্তৃতার বিষয় ছিল, দি ৱাহোমসমাজ, ইটস হিস্ট্রি এ্যান্ড ইটস প্রিনসিপলস। ম্যাজিলেক্ট্রট সাহেব অগ্ৰেই ম্যাডরাসি মেইল-এ আমার নাম শানিয়াছিলেন এবং আমার চিঠি পড়িয়াছিলেন। তিনি ব্রাহামসমাজের বিষয় শনিতে ব্যগ্র ছিলেন, সতরাং অন্যুরোধ করিবামাত্র তিনি স্কুল গাহ দিতে এবং সভাপতির আসন গ্রহণ করিতে স্বীকৃত হইলেন। বস্তৃতায় পরে ইংরাজেরা আমাকে ঘেরিয়া ফেলিলেন। SY