পাতা:আত্মচরিত (সিগনেট প্রেস) - শিবনাথ শাস্ত্রী.pdf/২০০

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


ষোড়শ পরিচ্ছেদ ॥ ১৮৮২-১৮৮৮ কমজীবন ইহার পরে পাঁচ ছয় বৎসরের মধ্যে যে যে বিশেষ কাজ হইয়াছিল, তাহার উল্লেখ করিতেছি। 甲 প্রমদাচরণ সেনের নাith of suitatয়। প্রথম, এই সময়ের মধ্যে বালকবালিকাদিগের জন্য দাইটি রবিবাসরীয় নীতিবিদ্যালয় স্থাপিত হয়। প্রথমটির প্রধান উদ্যোগকতা ছিলেন, “সখা” সম্পাদক প্রমদাচরণ সেন। প্রমদা হেয়ার স্কুলে আমার নিকট পীড়িত, এবং সে সময় আমি ছাত্ৰাদিগকে ১ লইয়া যে সকল সভা-সমিতি করিতাম তাহাতে উপস্থিত থাকিত। সেই সময় হইতে সে আমাকে পিতার ন্যায় ভালোবাসিত এবং সব বিষয়ে আমার অনসরণ করিত। ধমপত্র কথাটি যদি কাহারও প্রতি খাটা উচিত হয়, তাহা হইলে বলা যায় যে প্রমদা আমার ধমপত্র ছিল। ইহার পরে সে ব্রাহামসমাজে প্রবিন্স্ট হয় এবং আমার বাড়ির ছেলের মতো হয়। সিটি স্কুল পথাপিত হইলে সে তাহার একজন শিক্ষক হইয়াছিল। সে উদ্যোগী হইয়া অপর কয়েকজন যােবক বন্ধকে লইয়া সিটি স্কুল ভবনে বালকদিগের জন্য একটি নীতিবিদ্যালয় স্থাপন दक । । সাক্ষাৎভাবে আমার সহিত ঐ নীতিবিদ্যালয়ের যোগ ছিল না, কিন্তু আমি তাহার উৎসাহদাতা ও পরামর্শদাতা ছিলাম। মধ্যে-মধ্যে তাহাতে উপস্থিত থাকিতাম ও উপদেশ দিতাম । যে নীতিবিদ্যালয়টির সহিত আমার সাক্ষাৎ যোগ ছিল, তাহা ১৮৮৪ সাল হইতে আমাদের উপাসনা মন্দিরে বয়িল। ইহার প্রধান উদ্যোগকারিণী ও শিক্ষয়িত্রী ছিলেন, আমাদের কয়েকটি কন্যা। গরচরণ মহলানবিশ মহাশয়ের কন্যা সরলা, ভগবানচন্দ্র বস, মহাশয়ের কন্যা লাবণ্যপ্ৰভা, চন্ডীচরণ সেনের কন্যা কামিনী, এবং আমার কন্যা হেমলতা। হেম ইহাদের মধ্যে বয়সে সবকনিষ্ঠা ছিল। আমি এই নীতিবিদ্যালয়ের প্রতিস্ঠাকতা ও উৎসাহদাতা ছিলাম। এই কন্যাদের সঙ্গে বসিয়া ধম সকল কাজে সঙ্গে থাকিতাম । শিশ্য মাসিক পত্রিকা “মাকুল”-এর জন্ম। কয়েক বৎসর পরে (১৮৯৫ সালে) ইহারা বালকবালিকাদিগের জন্য একখানি মাসিক পত্রিকা বাহির করিবার সঙ্কলাপ করিলেন । তখন আমি তাহার সম্পাদক হইয়া “মাকুল’ নাম দিয়া এক মাসিক পত্রিকা প্রকাশ করিলাম এবং কিছদিন তাহার সম্পাদকতা করিলাম। ঈশবর কৃপায় ঐ নীতিবিদ্যালয় Sసి