পাতা:আত্মচরিত (সিগনেট প্রেস) - শিবনাথ শাস্ত্রী.pdf/২১৭

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


DDB Dt DB BBD DDDBS s BDDD BB BBSS DD DDBB DDSDB পরে দেখি, তিন-চারিজন সবলকায় পরষ আসিয়া অবারে উকি মারিতেছে ও পরস্পর কি পরামর্শ করিতেছে। তখন আমার সেই সংবাদপত্রের কথাটা সমরণ হইল। আমি । আসন ত্যাগ করিয়া উঠিলাম ও দ্রুতগতিতে বাহিরের রাস্তায় যাইবার জন্য অগ্রসর হইলাম। তাহারা দাবারে আমার গতিরোধ করিবার চেন্টা করিল। তাহারা আমার হাত ধরিতে না ধরিতে আমি দৌড়িয়া রাস্তায় গিয়া দাঁড়াইলাম। তখন দেখি সেই লোকটা রাস্তার অপর পাশব হইতে আমাকে দেখিয়া ছটিয়া আমার দিকে আসিতেছে। সে চীৎকার করিয়া বলিতে লাগিল, “দাঁড়ান, দাঁড়ান, আমার স্ত্রী আসছে।” আমি বলিলাম, “না, তোমার সন্ত্রীর জন্য আর দাঁড়াইব না, আমি চলিলাম।” সে আমার সঙ্গ লাইল। আমি বলিলাম, “তোমাকে যখন কিছ দিব বলেছি, তখন দিচ্ছি; তুমি আমার সঙ্গ ছেড়ে দাও।” এই বলিয়া তাহাকে কিছর পয়সা দিয়া কুমারী কলেটের বাড়ি গেলাম। গিয়া তাঁহার বকুনি খাইয়া মরি। তিনি বলিলেন, “তুমি কাগজে পড়েছি, লোক মাখে শনেছ, এই দিকে খারাপ লোকের বাস, তব তোমার চেতনা হয় নাই, এ বড় আশচয্য কথা! আর যদি প্রাণভয়ে পালিয়ে এলে, তবে পয়সা দিলে কেন ? দয়ার কি সস্থান অস্থান নাই?” আমি আর কি বলিব! মাথা পাতিয়া তাঁহার বকুনি थाङ्ग्रेव्नाट्य । ইংরাজের চোখে । যাহা হউক, ভালো বিষয়ও অনেক দেখিতে লাগিলাম। তাহার কতকগলি মনে আছে এবং উল্লেখ করিতেছি। একদিন কোথায় যাইব বলিয়া ট্রামে বসিয়াছি। গাড়িটা প্রায় যাত্রীতে পরিপািণ । আরোহীদিগের মধ্যে একজন এমনই মাতাল যে ঠিক হইয়া বসিতে পারিতেছে না। এমন সময় দেখা গেল, দইজন ভদ্র সন্ত্রীলোক গাড়িতে উঠিতে আসিতেছেন। সে দেশের নিয়ম এই যে গাড়িতে জায়গা না থাকিলে পরিষেরা দাঁড়াইয়া সত্ৰীলোকদিগকে বসিবার স্থান করিয়া দিবে। তদনসারে আমি ও আর একটি পরিষ উঠিয়া দাঁড়াইতে যাইতেছি, কিন্তু আমরা DBDB BD uDuBB BBB BBBDD BB BDBDBDD DDD uuD DDDBDBB DuuDuD করিতে লাগিল। গাড়ির লোকেরা বলিল, “তুমি বসিয়া থাক, এরা উঠিতেছেন।” কিন্তু সে তাহা শনিল না, তাহার মাতালে সরে বলিল, “নো! লেডিজ !” অর্থাৎ তা হবে না, ভদ্রমহিলা যে! আমি দেখিলাম, যে বেহােস তাহারও এতটকু হাস আছে। যে নিজে উঠিয়া ভদ্রমহিলার সােথান করিয়া দিতে হইবে। নারীজাতির প্রতি এই সম্পন্দ্ৰম ইংরাজ জাতির চরিত্রের এক প্রধান লক্ষণ। সেখানে থাকিতে-থাকিতে একদিন শানিলাম যে এক ছটির দিন কৃসন্টাল প্যালেস-এ শতাধিক শ্রমজীবী পরিষ কি বিবাদ বাধাইয়া মহা দাঙ্গায় প্রবত্ত হইল। কিয়ৎক্ষণ পরে একটি রোগা টিঙটিঙে মেয়ে আসিয়া তাহদের মধ্যে পড়িয়া সেই দাঙ্গা থামাইয়া দিলেন। তিনি নাকি ঐ শ্রেণীর মানষের মধ্যে ঘরিয়া ঘরিয়া তাহদের অবস্থার উন্নতির চেন্টা করিয়া থাকেন। . ইংরাজ চরিত্রে সত্যে প্রীতি ও প্রবণগুনায় ঘণা। অগ্ৰে সাধারণ প্রজাদের চরিত্রের কথাই বলি। তাহদের মধ্যে এক প্রকার মোটামটি সত্যপরায়ণতা আছে। তাহারা অসত্যকে ঘণা করে, প্রবণগুনাতে প্রবত্ত হয় না। যে কাজটা করিবে বলিয়া ভার লয়, তাহা সচারচর্যাপেই করিবার চেন্টা করে। অপরের কথা সোজাসাজি বিশ্ববাস করে, সে SRNS O