পাতা:আত্মচরিত (সিগনেট প্রেস) - শিবনাথ শাস্ত্রী.pdf/২২৯

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


সংস্কৃতের অধ্যাপক রিপে কেন্দ্ৰিব্ৰজে বাস করিতেছিলেন। অধ্যাপকতা করিবার জন্য তাঁহাকে কলেজে যাইতে হইত না, কিন্তু সংস্কৃত শিক্ষাথী ছাত্রগণ তাঁহার ভবনে আসিয়া পড়িয়া যাইত। সেই প্রবীণ মানষে যখন শনিলেন যে, ভারতবর্ষের একজন নেতৃস্থানীয় । লোক কেম্পিৱজের কলেজ সকল পরিদশর্তন করিতে আসিয়াছেন, তখন সেই দিযোগের ভিতরেও, আমি যে বন্ধর বাড়িতে উঠিয়াছিলাম, তাঁহার ভবনে আসিয়া আমার সহিত সাক্ষাৎ করিলেন। আমি বাল্যকালে সংস্কৃত কলেজে পড়বার সময় তাঁহাকে আমাদের কলেজের অধ্যক্ষ রপে দেখিয়াছিলাম, এবং কিরাপে তাঁহার সাধ্যতার দবারা মগধ হইয়াছিলাম, তাহার বিবরণ অগ্ৰেই দিয়াছি। এখন দেখিলাম। সেই সাধ পরিষ পালিতকেশ, সন্থবির; তাঁহার শত্ৰ শ্ৰমশ্র জাল নাভিকে অতিক্ৰম করিয়া নামিয়াছে; চক্ষদ্বয়ে ও মাখের আকৃতিতে গভীর জ্ঞানানরাগ ও সাধিতার দেদীপ্যমান প্রমাণ রহিয়াছে। তাঁহাকে আসিতে দেখিয়া আমি আশচযান্বিত হইয়া গেলাম। তাঁহাকে বালককালে কি দেখিয়াছিলাম, এবং তিনি আমার জীবনে সত্যানরাগ কিরাপে উদ্দীপত করিয়াছিলেন, তাহা যখন বলিলাম, এবং মিউন্টিনির হাঙ্গামা থামিলে নববর্ষে পারিতোষিক বিতরণের সময় তিনি যে সংস্কৃত কবিতাটি রচনা করিয়া পাঠ করিয়াছিলেন তাহা যখন আব্বত্তি করিলাম, তখন তিনি বিস্ময় ও আনন্দে পণ্য হইয়া উঠিলেন, এবং কেবলমাত্র আমাকে বকে জড়াইয়া কোলে লইতে বাকি রাখিলেন। তাঁহার রচিত সেই কবিতাটি এই— সমন্ধ-কীতি ভুবনে ভবিষ্যতি।। তথাহি সানোঁ মলয়াস্য নান্যতঃ ধ্ৰুবং সমারোহতি চন্দনদ্রািমঃ ॥ অর্থাৎ কলেজ। আপনার বাড়িতে আসিয়া উন্নতি লাভ করিয়া জগতে বিখ্যাত হইবে। তাহা তো হইবেই, কারণ মলয় পর্বতের সান দেশেই চন্দন ব্যক্ষ বাড়িয়া থাকে। এই কবিতাটি আবত্তির পর আমাদের পরাতন সম্পবিন্ধ যেন আবার জাগিয়া উঠিল। তিনি আমার কাছে বসিয়া সংস্কৃত কলেজ, জয়নারায়ণ তর্কপঞ্চানন, প্রেমচাঁদ তর্কবাগীশ প্রভৃতির কথা বলিতে লাগিলেন, এবং কেম্পিৱজে দেখিবার উপযক্ত কি আছে তাহাও জানাইলেন। দঃখের বিষয় এই দিযোগের জন্য সমাদয় দেখিতে পাইলাম না। কিন্তু বহদিন পরে সােধ কাউয়েলের সহিত সম্মিলনে যেন সকল অভাব পণ করিল। সেই সম্মিলন আমার নিকট চিরস্মরণীয় হইয়া রহিয়াছে। আচার্য জেমস মাটিনোর সহিত সাক্ষাৎ। অপর যে যে সমরণীয় মানষি সেখানে দেখিয়ছিলাম, এবং যাঁহাদিগের সহিত পরিচিত হইয়া আপনাকে উপকৃত বোধ করিয়াছিলাম, তাঁহাদের বিষয় কিছ কিছু উল্লেখ করিতেছি। প্রথম উল্লেখযোগ্য ব্যক্তি, ইউনিটেরিয়ানদিগের নেতা ও গর, আচায। জেমস মাটিনো। তিনি নিজের ধমজিজ্ঞান, চিন্তাশক্তি ও সাধিতার দ্বারা জগতে অমরত্ব লাভ করিয়াছেন। তাঁহার বিষয়ে আমি আর অধিক কি বলিব ? তাঁহার সঙ্গে একদিন মাত্র দেখা হইয়াছিল, কিন্তু সেই একদিন এ জীবনে চিরস্মরণীয় দিন হইয়া রহিয়াছে। আমি যখন লন্ডনে, তখন ডাক্তার মাটিনো সকল কায হইতে অবসত হইয়া সম্বকটলন্ডের কোনো নিভৃত প্রদেশে বাস করিতেছিলেন। ইতিমধ্যে অক্সফোড হইতে ডিগ্ৰী দিবার জন্য তাঁহার প্রতি এক RRć