পাতা:আত্মচরিত (সিগনেট প্রেস) - শিবনাথ শাস্ত্রী.pdf/২৬৮

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


ভিক্ষা না করার নিয়মের ব্যাঘাত করিয়াছিলাম। এলাহাবাদে একজন ব্ৰাহমবন্ধকে আমাদের জন্য ভিক্ষা করিবার অন্যািমতি দিয়াছিলাম। সেখানে কিছই হইল না। তৎপরে আমরা ভিক্ষা করা একেবারে বন্ধ করিলাম। কাহাকেও আমাদের অভাব DBDBDDDBL DS SDD DBBBD BBDsBBSDD DBBDD BDBS BDDDD SsBB DDBDD এইরুপে আমাদের ব্যয় নিবাহ হইত। আমরা এলাহাবাদ হইতে লক্ষেী, লক্ষেী হইতে কানপর গেলাম। তৎপরে আগ্রা, দিল্লী, লাহোর, রাওলপিন্ডী, ইন্দোর, বোম্বাই, মাঙ্গালোর, কালিকাট, কোইমেবাটর, বাঙ্গালোর, ত্ৰিচিনপল্লী, মালদ্ৰাজ, বোম্বাই, নাগপাের হইয়া কলিকাতায় ফিরিলাম। কাহারও নিকট কিছ ভিক্ষা না করিয়া স্বতঃপ্রবত্ত দানের দ্বারা আমাদের এই বিস্তীর্ণ ভ্রমণের সমাদয় ব্যয় সচার রূপে নিবাহ হইয়া গেল। তাহার পর আর এত দীর ভ্ৰমণ করি নাই। বিগত বৎসর, অর্থাৎ ১৯০৭ সালের মাৰ্চ মাসে, অন্ধু কনফারেন্সে সভাপতির কায করিবার জন্য একবার কোকানদাতে যাই। সেখান হইতে কলিকাতাতে ফিরিয়া আসিয়া শরীরটা বড় খারাপ হয়। সেই অবস্থাতে বায় পরিবতনের জন্য দাজিলিঙে যাই। ১৯o৭ সালে গারতের পীড়া। দাজিলিং হইতে পিতাঠাকুরমহাশয়ের গারতের পীড়ার সংবাদ পাইয়া সত্বর গ্রামে যাইতে হয়। তিনি আরোগ্য লাভ করিলে গ্রাম হইতে কলিকাতায় আসি। কলিকাতায় আসিয়া ১৭ই জন দিবসে আমি গারতের পীড়াতে পতিত হই। এই পীড়াতে কয়েকবার জীবন সংশয় হইয়াছিল। যাহা হউক, ঈশবর কৃপাতে ৪ । ৫ মাস রোগ শয্যায় যাপন করিয়া উঠিয়াছি। সেই পীড়ার শেষ ফল এখনো রহিয়াছে, আজিও (৫ই জন ১৯o৮) সম্পণে সম্পথ ও সবল হইতে পারি নাই। আগামী ১৭ই জািন হইতে আবার কাযারম্ভ করিব ভাবিতেছি। রোগশয্যাতে পড়িয়া অনেক আধ্যাত্মিক চিন্তা করিবার সময় পাইয়াছি। নবশক্তির সঙ্গে-সঙ্গে অনেক নািতন ভাব মনে আসিয়াছে। অবশিস্ট যে কয়েক বৎসর জগতে থাকি, নািতনভাবে কাটাইবি মনে করিতেছি। ঈশবর এই শািভ সংকল্পের সহায় হউন। Ry8