পাতা:আত্মচরিত (৩য় সংস্করণ) - শিবনাথ শাস্ত্রী.pdf/১৫০

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


Yx শিবনাথ শাস্ত্রীর আত্মচারিত [ ৫ম পরিঃ - অগ্ৰেই বলিয়াছি, আমরা দক্ষিণাত্য বৈদিক কুলজাত কুলীন ব্ৰাহ্মণ । আমাদের মধ্যে তখন কুলসম্বন্ধের প্রথা ছিল। তদনুসারে হেমলতার শৈশবেই বিবাহ সম্বন্ধ স্থির করিবার কথা। আমি সে পথে বিরোধী হইলাম। তাহার বিবাহ সম্বন্ধ করিতে নিষেধ করিয়া পিতাকে পত্ৰ লিখিলাম। তাহাতে বাবা কুপিত হইলেন। আমার নিষেধ গ্রাহ করিলেন না । আমার অজ্ঞাতসারে গোপনে একটি শিশু বালকের সহিত তাহার বিবাহ সম্বন্ধ স্থাপন করিলেন। আমি শুনিয়া অতিশয় দুঃখিত হইলাম। হৃদয় পরিবর্তনের দ্বিতীয় ফল, আত্মনিগ্ৰহ।-ঈশ্বর চরণে প্রার্থনা দ্বারা আমার হৃদয় পরিবর্তন ঘটিলে আমার প্রাণে এক নূতন সংগ্ৰাম জাগিয়াছিল। সকল বিষয়ে আপনাকে ঈশ্বরোিচ্ছার অনুগত করিবার জন্য দুরন্ত প্ৰতিজ্ঞা জন্মিয়াছিল। ইহার ফল জীবনের সকল দিকেই প্ৰকাশ পাইতে লাগিল। সকল বিষয়ে আপনাকে শাসন করিতে আরম্ভ করিলাম। যে যে বিষয়ে আসক্তি ছিল তাহা ত্যাগ করিতে এবং যে-কিছু অরুচিকর তাহ অবলম্বন করিতে প্ৰবৃত্ত হইলাম। এই সময়ে আমি প্ৰথমে মাৎসাহার পরিত্যাগ করি, প্ৰাণীহত্যা নিবারণের ইচ্ছায় নয়, কিন্তু মাংসের প্রতি আসক্তি ছিল বলিয়া । মাৎসাহারে এমনই আসক্তি ছিল যে, ভবানীপুরে চৌধুরী মহাশয়দিগের বাড়ীতে বাসকালে প্ৰায় প্রতি রবিবার প্রাতে যখন কালীঘাট হইতে জীবন্ত পাঠ আসিত, সে পাঠার ডাক শুনিলেই আমার পড়াশোনা বন্ধ হইত। তাহাকে কাটিয়া কুটিয়া রাধিয়া পেটে না পূরিতে পারিলে আর কিছু করিতে পারিতাম না । কবিতা পড়িতে ও “ কবিতা লিখিতে অতিরিক্ত ভালবাসিতাম। বলিয়া কিছু দিন কবিতা পড়া বন্ধ করিয়া দিলাম, ফিলজফি ও লজিক পড়িতে আরম্ভ করিলাম। বন্ধুদের-সহিত হাসি ঠাট্টা ও গল্পগাছা করিতে ভালবাসিতাম, কিছু দিন মনের কান মলিয়া দিয়া