পাতা:আত্মচরিত (৩য় সংস্করণ) - শিবনাথ শাস্ত্রী.pdf/১৮২

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


ষষ্ঠ পরিচ্ছেদ ব্ৰাহ্মধৰ্ম্মে দীক্ষা ; উপবীত ত্যাগ ; পিতৃগৃহ হইতে তাড়িত হওয়া ; ব্ৰাহ্ম দলে সমাদর ᏱbrᏬᏍ , ᎼᎨᎸ o ব্ৰাহ্মসমাজে প্ৰবেশের বিবরণ — এখন আমার ব্ৰাহ্মসমাজে প্রবেশের বিবরণ বলি । ১৮৩৫ সালে আমার হৃদয় পরিবর্তনের দিন হইতে আমি কিরূপে অল্পে অল্পে ব্ৰাহ্ম ভাবাপন্ন হইয়া ব্ৰাহ্মসমাজের দিকে আকৃষ্ট হইতেছিলাম, তাহা অগ্ৰেই বৰ্ণনা করিয়াছি। বাস্তবিক, তদবধি এই ১৮৬৮ সালের শেষ পৰ্য্যন্ত আমার হৃদয়ে ব্যাকুলত অগ্নির মত।” জলিতেছিল। আমার অনেক পুরাতন কুৎসিত অভ্যাস ত্যাগ করিতে দৃঢ়প্ৰতিজ্ঞ হইয়াছিলাম। যাহাতে নীতি বা ধৰ্ম্মের উপদেশ আছে এরূপ কোনও গ্ৰন্ত পাইলেই তাহা অতি উপাদেয় বোধ হইত, এবং তাহা আর ছাড়িতে ইচ্ছা হইত না । এই কারণে বড়লোকদিগের জীবনচরিত পড়িতে ভাল লাগিত । জীবনচরিত ও সাদগ্ৰন্থ পাঠে রুচি।—এই জীবনচরিত পড়ার বাতিকটা এখনও আছে। আমি ভাবিয়া দেখিয়াছি, ধৰ্ম্মবিজ্ঞান (theology ) Citi (fift CNS ( practical religion) প্ৰতি আমার চিরদিন অধিক तुष्टि । অথচ ভাবিতে ক্লেশ হয়, লিখিতে চক্ষে জল আসিতেছে, કરે practical religiona আমি সর্বাপেক্ষা অধিক হারিয়া গিয়াছি। আমার আকাজক্ষা চিরদিন আধ্যাত্মিক উন্নতির দিকে রহিয়াছে, কিন্তু প্ৰবৃত্তি সকলকে সকল