পাতা:আত্মচরিত (৩য় সংস্করণ) - শিবনাথ শাস্ত্রী.pdf/২১৪

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


Yხy o , শিবনাথ শাস্ত্রীর আত্মচারিত / 97 7 ব্ৰাহ্ম পরিবারে ব্যাপ্ত করিতে পারে। এই ভাব লইয়া তিনি ভারত আশ্রম স্থাপন করিলেন। তঁহার অনুচর প্রচারকগণ সর্বাগ্রে গেলেন। তৎপরে আমরাও অনেকগুলি পরিবার বাহির হইতে গেলাম। আমরা কেশব বাবুর মনের ভাবটা কাজে করিয়া দেখিবার জন্য কৃতসঙ্কল্প হইলাম। ভারত আশ্রমে কেশবচন্দ্রের বিমল সহবাস —ভারত আশ্রম স্থাপিত হইলে কেশব বাবু কলুটােলার বাড়ী পরিত্যাগ করিয়া আমাদের সঙ্গে আসিয়া থাকিতে লাগিলেন। কলিকাতা ১৩ নং মির্জাপুর ষ্টীট ভবনে (বর্তমান সিটি স্কুলের ভূমিস্থিত ভবনে) প্ৰথমে কিছু দিন থাকিয়া পরে সহরের বাহিরে কোন কোনও বাগানে গিয়া থাকা হয়। প্রথম বেলঘরিয়ায় এক বাগানে, তৎপরে কাঁকুড়াগাছির এক বাগানে কিছু দিন থাকা হয়। এই সকল স্থানে গিয়া আমরা কেশব বাবুর বিমল সহবাসে থাকিবার অবসর পাইলাম। স্বীয় স্বীয় ব্যয়ের অংশ দিয়া সকলে একান্নভূক্ত পরিবারের ন্যায় থাকিতাম। এক সঙ্গে খাওয়া, এক সঙ্গে বসা, এক সঙ্গে বেড়ান,-সুখেই কাল কাটিত । সহরে র্যাহাদের কাজ থাকিত, তাহারা দিনের বেলায় সহরে গিয়া কাজ করিয়া আসিতেন। প্ৰাতে ও সন্ধ্যাতে এক সঙ্গে উপাসনা ও এক সঙ্গে ধৰ্ম্মালাপ চলিত । আমরা সকল বিষয়েই কেশব বাবুর পরামর্শ ও সদুপদেশ পাইতাম । আমি ব্ৰাহ্মধৰ্ম্ম প্রচার কাৰ্য্যে আপনাকে অৰ্পণ করিব বলিয়াই ভারত আশ্রমে বাস করিতে গিয়াছিলাম। আমার আগ্ৰে অভিপ্ৰায় ছিল যে, আমি কলেজ হইতে উত্তীর্ণ হইয়া ওকালতী করিব ; সেই জন্য উকীল বন্ধুদের পরামর্শে তিন বৎসর “ল লেকচার’ শুনিয়া শেয করিয়া রাখিয়াছিলাম। যত দূর স্মরণ হয়, আমার বি এল দিবার ইচ্ছা হইবার আর একটি কারণ ছিল। তদানীন্তন লেফটেনাণ্ট গবর্ণর সংস্কৃত কলেজের প্রিন্সিপাল প্ৰসন্নকুমার সর্বাধিকারী মহাশয়কে বলিয়াছিলেন, “আমি Judicial Serviceca CONCS (CaCSFS ছেলে চাই, oog Vos Hindu