পাতা:আত্মচরিত (৩য় সংস্করণ) - শিবনাথ শাস্ত্রী.pdf/২৫৩

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


Swዓ8-ፃ9 ] ব্ৰহ্মময়ী । Rò G আশ্চৰ্য্যান্বিত হইয়া জিজ্ঞাসা করিলেন, “মশাই যে যীশুর চলণে প্ৰণাম করছেন, তঁাকে আপনি কি মনে করেন ?” উত্তর। কেন, ঈশ্বরের অবতার। খ্ৰীষ্টীয় বন্ধুটি বলিলেন, ঈশ্বরের অবতার কিরূপ ? কৃষ্ণাদির মত’ ? রামকৃষ্ণ । হঁয়, সেইরূপ । ভগবানের অবতার অসংখ্য, যীশুও এক অবতার । খ্ৰীষ্টীয় বন্ধু। আপনি অবতার বলতে কি বোঝেন ? রামকৃষ্ণ । সে কেমন তা জান ? আমি শুনেছি, কোন কোন স্থানে সমুদ্রের জল জ’মে বরফ হয়। অনন্ত সমুদ্র প’ড়ে রয়েছে, এক জায়গায় কোন বিশেষ কারণে খানিকটা জল জ’মে গেল ; ধরবার ছোবার মত’ হ’ল। অবতার যেন কতকটা সেইরূপ। অনন্ত শক্তি জগতে ব্যাপ্ত আছেন, কোন বিশেষ কারণে কোনও এক বিশেষ স্থানে খানিকটা ঐশী শক্তি মূৰ্ত্তি ধারণ করলে, ধরবার ছোবার মত’ হ’ল। ধীশু প্রভৃতি মহাজনদের যে কিছু শক্তি সে ঐশী শক্তি, সুতরাং তঁরা ভগবানের অবতার । রামকৃষ্ণের সহিত মিশিয়া আমি ধৰ্ম্মের সার্বভৌমিকতার ভাব বিশেষ রূপে উপলব্ধি করিয়াছি। ইহার পর রামকৃষ্ণের সহিত আমার মিত্ৰতা আরও ঘনীভূত হয়। এমন দিনও গিয়াছে, আমাকে অনেক দিন দেখিতে না পাইয়া তিনি ব্যাকুল হইয়া আমার সহিত সাক্ষাৎ করিতে আমার ভবনে আসিয়াছেন। ব্ৰহ্মময়ী -এ সময়ের আর একটি স্মরণীয় বিষয়, আমার বন্ধু তুর্গামোহন দাস মহাশয়ের প্রথম পত্নী ব্ৰহ্মময়ীর ভালবাসা, ও তঁহার মৃত্যুতে আমাদের ক্লেশ। দুর্গামোহন বাবু এ সময় ভবানীপুরের সন্নিকটে বাস করিতেন, সুতরাং তঁহার ভবনে সর্বদা যাইতাম। ব্ৰহ্মময়ী আমার আকর্ষণের প্রধান কারণ ছিলেন ; তিনি আমাকে বড় ভালবাসিতেন।