পাতা:আত্মচরিত (৩য় সংস্করণ) - শিবনাথ শাস্ত্রী.pdf/২৫৪

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


SS Sp শিবনাথ শাস্ত্রীর আত্মচারিত [ ৯ম পরিঃ তঁহার সেই সরল পবিত্ৰত মাখা মুখখানি যেন স্মৃতিতে জাগিতেছে। “ প্ৰসন্নময়ীর ন্যায়, তারও সন্তানের ক্ষুধা যেন নিজ সন্তান দিয়া মিটিত না। তিনিও কতকগুলি নিরাশ্রয় বালিকাকে নিজ ভবনে আশ্রয় দিয়া পালন করিতেছিলেন । ব্ৰহ্মময়ী আমার সর্ববিধ সদনুষ্ঠানের উৎসাহদায়িনী ছিলেন। তাহার একটি নিদর্শন মনে আছে। এক বার ভবানীপুর ব্ৰাহ্মসমাজের অন্যতম সভ্য শিতিকণ্ঠ মল্লিক ও আমি পরামর্শ করিলাম যে ভবানীপুরে একটি লাইব্রেরি ও পাঠাগার করিলে ভাল হয়। এই পরামর্শ করিয়া আমরা এক দিন দুৰ্গামোহন বাবুর নিকট টাকা ভিক্ষা করিতে গেলাম। দুর্গামোহন বাবু অর্থ সাহায্য করিতে অস্বীকৃত হইলেন, তাহা লইয়া তাহার সঙ্গে অনেক বাদবিতণ্ডা চলিল। আমি বলিলাম, “আপনার নিকট হইতে যদি কিছু টাকা আদায় না করি, তবে আমার নাম শিবনাথ শাস্ত্রী নয়।” তিনি বলিলেন, “আমার নিকট হ’তে যদি কিছু আদায় করতে পাের, তবে আমার নাম দুৰ্গামোহন দাস নয়।” ইহার পর শিতি বাবুর সহিত র্তাহার তর্ক বাধিল । আমি ইতিমধ্যে সরিয়া পড়িয়া একেবারে উপর তলায় ব্ৰহ্মময়ীর নিকট গেলাম। প্ৰস্তাবটি বেশ করিয়া তঁহাকে বুঝাইয়া দিলাম। তিনি শুনিয়া বলিলেন, “জ্ঞানের চর্চা বাড়ে, সে ত ভালই। আপনারা কি মেয়েদের পড়বার মত’ বই রাখবেন ? অল্প কিছু জমা দিয়ে ভদ্র লোকের মেয়েরা কি ভাল ভাল বাঙ্গলা বই নিয়ে পড়তে পারবে ?” আমি বলিলাম, হঁ্যা, তা পারবে। ব্ৰহ্মময়ী। তবে আমি এককালীন ৫০২ টাকা, ও মাসে মাসে ৪২ টাক ক’রে দেব। আমি বলিলাম, তবে এই কাগজে নামটা স্বাক্ষর ক’রে দিন। এইরূপে একটা কাগজে পূৰ্ব্বোক্ত প্ৰতিজ্ঞা লিখিয়া তাহাতে র্তার নাম