পাতা:আত্মচরিত (৩য় সংস্করণ) - শিবনাথ শাস্ত্রী.pdf/৩২৭

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


Swዓ እs ] ছাত্র সমাজ । 5 ዓ 8 উঠিয়া আসিলা। এতদ্ব্যতীত এই ভবনে আমরা কয়েক জন প্রতি দিন সন্ধ্যার সময় ঈশ্বরোপাসনার জন্য মিলিত হইতে লাগিলাম। তদ্ভিন্ন এই ভবনে সাধারণ ব্ৰাহ্মসমাজের সাপ্তাহিক অধিবেশন হইতে লাগিল । সমাজের কাজ দিন দিন জমিয়া যাইতে লাগিল । ছাত্র সমাজ ।—সিটি স্কুলটি জমিয়া বসিলে কয়েক মাস পরেই ( ১৮৭৯ সালের ২৭শে এপ্রিল) আনন্দমোহন বাবুর সহিত পরামর্শ করিয়া আমার বহু দিনের সঙ্কল্পিত * একটি কাজের সূত্ৰপাত করা গেল ; তাহা ছাত্র সমাজ নামে একটি সমাজ স্থাপন করা । প্ৰথমে এক সপ্তাহ অন্তর রবিবার প্রাতে সংক্ষিপ্ত উপাসনা পূর্বক নানা বিষয়ে উপদেশ দিবার রীতি প্ৰবৰ্ত্তিত হইল। স্কুল কলেজে ধৰ্ম্মবিহীন শিক্ষা দেওয়া হয়, সেই অভাব কিয়ং পরিমাণে দূর করা আমাদের উদ্দেশ্য ছিল। সুতরাং আমরা সেই ভাবে বক্তৃতা সকল করিতাম। ঐ সকল বক্তৃতার অধিকাংশ আনন্দমোহন বাবু ও আমি দিতাম। প্রথমে সিটি স্কুল গৃহে ছাত্ৰ সমাজের অধিবেশন হইত। তৎপরে উপাসনা মন্দির নিৰ্ম্মিত হইলে সেখানে উঠিয়া যায়। পাঁচ প্রকারে ছাত্ৰ সমাজের কাৰ্য্য চলিল। ( ১ম ) প্ৰথমে পাক্ষিক, তৎপরে সাপ্তাহিক, উপাসনা ও বক্ততা । ( ২য় ) ছাত্ৰাবাস পরিদর্শন। ( ৩য় ) মধ্যে মধ্যে সদলে সহরের সন্নিকটস্থ উদ্যানাদিতে গমন । ( ৪র্থ) মধ্যে মধ্যে সান্ধ্য সমিতির ব্যবস্থা । ( ৫ম) পুস্তকাদি মুদ্রাঙ্কণ \G sitsis এই পাচ প্রকার। কাৰ্য্য দ্বারা প্ৰভূত ফল লাভ করা গেল। ছাত্র সমাজের সভ্য সংখ্যা দিন দিন বাড়িতে লাগিল। এক এক বার দুই শত, আড়াই শত যুবক লইয়া আমরা কোম্পানির বাগানে গিয়াছি। সেখানে পাসনা ও প্রতিভোজন প্ৰভৃতি হইয়াছে। তখন ছাত্ৰ সমাজ ভিন্ন SLGSSSGLSLSL0SLSLSLS S ASAS SM LLSLLC CLLLSLLSLSALSLASS

  • ২৬১ পৃষ্ঠা দেখ।