পাতা:আত্মচরিত (৩য় সংস্করণ) - শিবনাথ শাস্ত্রী.pdf/৩৪১

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


বোম্বাই ; আহমদাবাদ “” s আপনাকে ঘরে স্থান দিয়া ও আপনার সেবা করিয়া আমরা কৃতাৰ্থ হইব ।” নবলরায় বলিলেন, সে রাত্রি তিনি যেরূপ সুখে বাস করিয়াছিলেন, জীবনে এরূপ অল্প রাত্ৰিই যাপন করিয়াছেন। বলিতে কি, নবলরায়ের গুণে হায়দরাবাদ আমার নিকট তীর্থ স্থানের ন্যায় হইয়া গেল। বোম্বাই।—২৯শে আগষ্ট ১৮৭৯ আমরা ষ্টীমারে বোম্বাই পহুছিলাম। বোম্বাইয়ে বি এম ওয়াগলে, নারায়ণ পরমানন্দ, রামকৃষ্ণ গোপাল ভাণ্ডারকর, মহাদেব গোবিন্দ রাণাডে, মিষ্টার কুণ্টে, তেলাঙ্গ, প্রভৃতি মহাত্মাগণের সহিত পরিচিত হইয়া আপনাকে বড়ই উপকৃত বােধ করিতে লাগিলাম । বিশেষতঃ পরমানন্দ মহাশয়ের আকৃত্ৰিম বিনয় ও বিমল সাধুতা চিরদিন আমার স্মৃতিতে রহিয়াছে। নারায়ণ গণেশ চন্দাবারকার তখন কলেজের ছাত্ৰ, কিন্তু তখনই তঁার প্রতিভার পরিচয় পাওয়া যাইতেছে। তিনি তখনই ‘ইন্দুপ্রকাশ” কাগজের সম্পাদকতা করিতেছেন। তিনি এ যাত্ৰা আমার কাৰ্য্যের বিশেষ সহায়তা করিয়াছিলেন। আহমদাবাদ ।--আমি লালসিৎকে বোম্বাই নগরে রাখিয়া গুজরাটে গমন করি। সুরাট হইয়া ১৪ই সেপ্টেম্বর আহমদাবাদে যাই । আহমদাবাদে গিয়া আমি সুপ্ৰসিদ্ধ ভোলানাথ সারাভাই মহাশয়ের ভবনে অতিথি হই। এমন নিৰ্ম্মল সাধুতা, এরূপ অকপট ঈশ্বরভক্তি, আমি অল্প মানুষেই দেখিয়াছি। তঁহার সহবাসে কয়েক দিন থাকিয়া বড়ই উপকৃত হইয়াছি। ভোলানাথ সারাভাই সুকবি ছিলেন, তিনি ভজন সঙ্গীত রচনা করিয়া গুজরাটী সঙ্গীতে অমৃত ঢালিয়া দিয়া গিয়াছেন। তঁহার ভজনাবলী এখনও ঘরে ঘরে গীত হইতেছে। আহমদাবাদ হইতে ২৬শে সেপ্টেম্বর বড়োদায় গমন করি। সার টি মাধব রাও তখন বড়োদাতে প্ৰধান মন্ত্রী রূপে প্রতিষ্ঠিত ছিলেন। তিনি আমাকে রাজ অতিথি রূপে গ্ৰহণ করেন, এবং আমাকে বিধিমতে সম্মানিত করেন। । গুজরাট প্রদেশ হইতে ফিরিয়া বোম্বাই নগরে আসিয়া আমি