পাতা:আত্মচরিত (৩য় সংস্করণ) - শিবনাথ শাস্ত্রী.pdf/৩৫১

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


sywo } আর্থিক অবস্থা V9e:K) এবং আপনাদের ঋণ শোধ করতে পারি, আপনাদের টাকা আপনাদের নিতেই হবে।” তঁাহারা বলেন, “আচ্ছা, তখন দেখা যাবে। এখন ত जभांख्द्धि कांड कद्ध।” তখন এই কথা থাকে। তদনুসারে এবার পরীক্ষকের বৃত্তি পাইয়াই আমি দুৰ্গামোহন বাবুকে টাকা লইবার জন্য লোক পাঠাইতে লিখি। তিনি উত্তরে fficer, Good boy Quite worthy of you Make over the four hundred rupees to GC Mahalanobish as part of my contribution to the Mandir Building Fund তিনি বন্ধুকে কৰ্ত্তব্য করিতে দিলেন, অথচ সমাজের সাহায্য করিলেন। আনন্দমোহন বাবুর দেন শোধ দিবার অবসর প্রায় বিশ বৎসর পরে উপস্থিত হইয়াছিল। বিশ বৎসর পরে আমি যখন টাকা দিবার জন্য তঁহাকে পত্ৰ লিখিলাম, তখন তিনি লিখিলেন যে, তাহার পুরাতন কাগজপত্ৰ নাই এবং ঐ টাকার কথা তাহার স্মৃতিতেও নাই। পরে যখন দেখিলেন যে ঋণটা শোধ না দিলে আমার মনটা শান্ত হয় না, তখন অনিচ্ছা সত্ত্বেও টাকাটা লইলেন। কিন্তু পরে জানিয়াছি যে, সে-টাকা স্বতন্ত্র করিয়া বাড়ীর মেয়েদের হাতে দিয়া এই আদেশ করিয়াছিলেন যে, তঁাহারা তাহা আমার সাহায্যাৰ্থ ব্যয় করিবেন। তঁহার এইরূপে শত শত টাকা আমার সাহায্যাৰ্থ দিয়া আসিতেছেন। তাহা আর কি বলিব । তঁহাদের প্রতি কৃতজ্ঞতার ঋণ অপরিশোধনীয়। আজিও বহু পরিবারের বন্ধুগণ আমার পশ্চাতে সহায় হইয়া রহিয়াছেন। আমি কোনও অভাবে পড়িয়াছি জানিলেই সাহায্যের জন্য তাহাদের দক্ষিণ হস্ত প্রসারিত হয়। বলিতে চক্ষে জল আসে, আমাকে কিছু দিন দেখিতে না পাইলেই তঁাহারা অস্থির হইয়া উঠেন, তবে বুঝি কোনও ক্লেশের মধ্যে বাস করিতেছি! আমনি চিঠির উপর চিঠি আসে, বা নিজের কেহ আসিয়া উপস্থিত হন।